রোহিঙ্গা সংকট : ঢাকায় জাতিসংঘ মহাসচিব

15

তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে এসেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। মূলত রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দেখতেই তার এই সফর। আর এর মাধ্যমে প্রায় ৭ বছর পর জাতিসংঘের কোনো মহাসচিব বাংলাদেশ সফরে আসলেন।  রোববার (১ জুলাই) রাতে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন গুতেরেস। সেখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী তাকে স্বাগত জানান।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, গুতেরেস আজ প্রধানমন্ত্রী, শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীসহ সরকারের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক ব্যক্তি এবং জাতিসংঘের ঢাকা অফিসের কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। রাতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন জাতিসংঘরে মহাসচিব। আগামীকাল সোমবার সকালে রোহিঙ্গা সংকট পর্যবেক্ষণ করতে তিনি কক্সবাজার যাবেন। পরদিন মঙ্গলবার সকালে ঢাকা ছেড়ে যাবেন তিনি।

সূত্রগুলো আরো বলছে, গুতেরেস মহাসচিব হওয়ার পর এটাই তাঁর প্রথম ঢাকা সফর। এ সফরে অভ্যন্তরীণ, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক রাজনীতি, শান্তি, স্থিতিশীলতা এবং বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্ঠা ও শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ কিভাবে আরো জোরালো ভূমিকা রাখতে পারে তা নিয়ে আলোচনা থাকবে সরকারের নীতি-নির্ধারণী একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে অনুষ্ঠেয় বৈঠকগুলোতে। বিশেষ করে বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ, অবাধ-সুষ্ঠু এবং গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে জাতিসংঘের পর্যবেক্ষণ এবং সুপারিশ ও সহায়তার নিয়েও আলোচনা হবে।

অন্য খবর  ট্রাম্পকে মিথ্যাবাদী, অবিশ্বাসী বললেন সাংবাদিক কার্ল বার্নস্টেইন

জাতিসংঘ প্রধানের এই সফর সম্পর্কে গতকাল শনিবার পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের ঢাকা সফরে রোহিঙ্গা ইস্যুই প্রাধান্য পাবে। জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে বাংলাদেশ আশ্রয় দিয়েছে। কিন্তু এতো বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর থাকা-খাওয়াসহ একাধিক সেবার জন্য যে পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন, তা বাংলাদেশের নেই। আন্তর্জাতিক একাধিক সংস্থা ও রাষ্ট্র রোহিঙ্গা ইস্যুতে অর্থের যোগান দেওয়ার বিষয়ে নিশ্চয়তা দিলেও এখন পর্যন্ত চাহিদার শতভাগ অর্থ পাওয়া যায়নি। তাই অ্যান্তোনিও গুতেরেসের ঢাকা সফরে এই বিষয়ে সমাধান আসবে বলে আশা করি।

Comments

comments