রোজার জরুরি মাসালা

130

প্রশ্ন : রোগীকে রক্ত দিলে বা পরীক্ষার জন্য রক্ত দিলে রোজা ভঙ্গ হয় কিনা?

উত্তর : না, কাউকে রক্ত দিলে বা পরীক্ষার জন্য রক্ত দিলে রোজা ভঙ্গ হয় না। কারণ হাদিস শরিফে বর্ণিত আছে শরীর থেকে কোনো কিছু বের হওয়ার মাধ্যমে রোজা ভঙ্গ হয় না। (মাজমাউল আনহুর, ১/৩৫৬, বাহরুর রায়েক ২/২৭৬, শামী ৩/৩৬৭, ফাতাওয়া ১/২৫৩, আহসানুল ফাত্তাওয়া ৪/৪২৫, আপকে মাসায়েল ৩/২১৬)।

সোহাইল, টাঙ্গাইল
প্রশ্ন : চোখে ড্রপ দিলে রোজা ভঙ্গ হবি কিনা?
উত্তর : না, চোখে ড্রপ দিলে মুখে তার স্বাদ অনুভব হলেও রোজা ভঙ্গ হবে না। তবে নাকে ড্রপ দিলে যদি তা পেটে বা মস্তিষ্কে পৌঁছে তা হলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। (আলমগীরি ১/২০৩, শামী, আহসানুল ফাতাওয়া ৪/৪২৯, বাদাইউস সানায়ে ২/৯৩, মাহমুদিয়া ১৫/১৬৮)।
সামিউল হক, দুবাই
প্রশ্ন : ইনসুলিন বা ইনজেকশন নিলে রোজা ভঙ্গ হবে কিনা?
উত্তর : না, ইনসুলিন বা ইনজেকশন নিলে রোজা ভঙ্গ হবে না। কারণ সরাসরি পেটে বা মস্তিষ্কে কোনো কিছু পৌঁছলেই রোজা ভঙ্গ হয়। আর ইনজেকশন বা ইনসুলিন সরাসরি পেটে বা মস্তিষ্কে পৌঁছে না। (শামী ৩/৩৬৭, আলমগীরি ১/২০৩, আহসানুল ফাতাওয়া ৪/৪২২, মাহমুদিয়া ১৫/১৮১)।
আফরোজা আহমদ, লন্ডন
প্রশ্ন : ইনহেলার ব্যবহার করলে রোজা ভঙ্গ হবে কিনা?
উত্তর : হ্যাঁ, ইনহেলার ব্যবহার করলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। কারণ রোজা অবস্থায় কোনো ধরনের ধোঁয়া মুখে টেনে নিলে রোজা ভঙ্গ হয়ে যায়। বিড়ি-সিগারেট বা হুক্কা পান করার মাধ্যমেও এ কারণেই রোজা ভঙ্গ হয়ে যায়। ইনহেলার যেহেতু ধোঁয়াজাতীয় তাই ইনহেলার ব্যবহার করায় রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। (শামী ৩/৩৬৬, হেদায়া ১/২১৯, ফাতহুল কাদির ২/২৫৮, ইমদাদুল ফাতাওয়া ২/১২৪)।
ইসমাইল, দ. কোরিয়া
প্রশ্ন : রোজা অবস্থায় টুথপেস্ট ব্যবহার করলে রোজার কোনো ক্ষতি হবে কিনা?
উত্তর : টুথপেস্ট দিয়ে দাঁত মাজলে মুখে একটা স্বাদ অনুভূত হয়। একটা মিষ্টি মিষ্টি কিছু গলার ভেতরেও যায়। এ কারণে অনেকের মতেই রোজা অবস্থায় টুথপেস্ট ব্যবহার করা মাকরুহ। সুতরাং তা বর্জন করাই শ্রেয়। (আলমগীরি ১/১৯৯)।
ইফতেখার কামাল, সিঙ্গাপুর
প্রশ্ন : তারাবির নামাজের কয়েক রাকাত ইমামের সঙ্গে পাওয়া না গেলে ইমাম যখন বিতির আদায় করবেন তখন কি ইমামের সঙ্গে বিতির পড়তে হবে নাকি আগে ছুটে যাওয়া তারাবির রাকাতগুলো আদায় করে পরে একাকী বিতির পড়বে?
উত্তর : এ ক্ষেত্রে ইমামের সঙ্গে জামাতে বিতির আদায় করবেন এবং পরে ছুটে যাওয়া তারাবি আদায় করবেন। (আলমগীরি ১/১১৭, শামী ২/৪৯৪, খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/৬৩, বাহরুর রায়েক ২/৬৮)। মুফতি মুতীউর রাহমান
প্রধান মুফতি, চৌধুরীপাড়া মাদ্রাসা
খতিব মুহম্মদিয়া দারুল উলুম জামে মসজিদ, ঢাকা

অন্য খবর  দুর্বৃত্তায়নের যাঁতাকলে খাদ্য অধিকার

 

Comments

comments