বিপিএলে অংশ নিতে চান প্রায় ২০০ বিদেশী খেলোয়াড়

1440
BPL

নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল সফর তাদের বাতিল করলেও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি-২০ টুর্নামেন্টে প্রায় দুইশ’ বিদেশী ক্রিকেটার অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে কর্মকর্তারা রোববার জানিয়েছেন।

বিপিএল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের বিতর্কিত ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ আমির এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ তারকা ক্রিস গেইল ছাড়াও ইংল্যান্ডের ৪৮ এবং অস্ট্রেলিয়ার চার ক্রিকেটার টুর্নামেন্টে অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির সদস্য খালেদ মাহমুদ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘পাকিস্তানের ৫২ এবং ইংল্যান্ডের ৪৮ জনসহ এ পর্যন্ত মোট ১৮২ বিদেশী খেলোয়াড় আনুষ্ঠানিকভাবে এ বছরের টুর্নামেন্টে অংশ নেয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন।’

মাহমুদ বলেন, ‘আগ্রহ প্রকাশ করা শীর্ষ খেলোয়াড়দের মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানের মিসবাহ উল হক, শহিদ আফ্রিদি, সম্প্রতি নিষিদ্ধাদেশ কাটিয়ে মাঠে ফেরা মোহাম্মদ আমির, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল, ইংল্যান্ডের রবি বোপারা এবং শ্রীলংকার কুমার সাঙ্গাকারা।’

ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারির কারণে দু’বছর স্থগিত থাকার পর আগামী ২১ নভেম্বর থেকে আকর্ষণীয় এ টুর্নামেন্ট শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

নিরাপত্তা নিয়ে কেউ কেউ শংকা প্রকাশ করলেও এত বিপুল সংখ্যক খেলোয়াড়ের আগ্রহ প্রকাশকে ইতিবাচক হিসেবে দেখেছে বিসিবি।

অন্য খবর  যে কারণে বাংলাদেশের শোচনীয় হার

নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে এ মাসের প্রথম দিকে বাংলাদেশ সফর স্থগিত করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল।
বিসিবি মুখপাত্র জালাল ইউনুস বলেন, ‘এখানে খেলা সকল ক্রিকেটারের জন্য আমরা পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছি। অতএব বিদেশী খেলোয়াড়দের জন্য বড় কোন শংকা কখনোই ছিল না।

আগামী ৩১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বিপিএলের লটারি। টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া ছয়টি দল প্রত্যেকে ছয় জন করে বিদেশী খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করাতে পারবে।

নিরাপত্তা শংকার কারণে বাংলাদেশ দল পাকিস্তান সফরে অস্বীকৃতি জানানোর পর ২০১৩ সালের দ্বিতীয় আসর থেকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) তাদের খেলোয়াড়দের বিপিএল অংশ নিতে দিচ্ছিল না।

কিন্তু বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফরের পর উভয় বোর্ডের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি ঘটেছে।

২০১০ সালে ইংল্যান্ড সফরে ম্যাচ ফিক্সিং করে পাঁচ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিলেন আমির। ১ সেপ্টেম্বর তার নিষিদ্ধাদেশ উঠে যাওয়ার পর প্রতিদ্বন্দিতামুলক ক্রিকেটে ফিরেছেন তিনি।

Comments

comments