বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়: যমুনা ও এন মল্লিককে জরিমানা

340
যমুনা ও এন মল্লিক

ঢাকা-বান্দুরা আঞ্চলিক মহাসড়কে বাসে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অপরাধে তিনটি পরিবহনকে ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জরিমানা করা হয়েছে এন মল্লিক পরিবহন, যমুনা পরিবহন ও দ্রুত সার্ভিস পরিবহনকে। বৃহস্পতিবার  দুপুরে ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসের সামনে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহনাজ মিথুন মুন্নির ভ্রাম্যমাণ আদালতে এ জরিমানা করা হয়।

রাস্তার মাইল ফলক অনুযায়ি নবাবগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব মাত্র ৩৬ কিলোমিটার। অথচ এই দূরত্বের জন্য আদায় করা হয় ৮০ টাকা। ঈদ উপলক্ষে এই ভাড়া বেঁড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত। ঈদের দুদিন আগে থেকে শুরু হওয়া এই ভাড়া আদায় করা হচ্ছে গতকাল সোমাবার পর্যন্ত। যাত্রীদের অভিযোগ, ভাড়ার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলেই হেলপার-সুপারভাইসাররা দূর্ব্যবহার করে। এমনকি অনেক সময় তাদের বাস থেকে নেমে যেতে বাধ্য করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, ঈদের ৩/৪ দিন আগে থেকে ঈদের ৬ষ্ঠ দিন পর্যন্ত যাত্রীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে আসছিল ঢাকা-বান্দুরা সড়কের যাত্রীবাহী এ বাসগুলো। এ অভিযোগের ভিত্তিতে এন মল্লিক পরিবহনকে ৩৫ হাজার, যমুনা পরিবহনকে ২০ হাজার ও দ্রুত সার্ভিস পরিবহনকে ১০ হাজার টাকা  মোট ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জ পুলিশের গ্রাম পুলিশের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

যাত্রীরা জানান, বান্দুরা থেকে গুলিস্থানের নিয়মিত ভাড়া ৮০ টাকা। কিন্তু তারা অতিরিক্ত ২০ টাকা অর্থাত্ ১০০ টাকা ভাড়া নিচ্ছে। শুধু তাই নয়, নবাবগঞ্জ, বাগমারা, বক্সনগর এবং পরবর্তী স্ট্যান্ডগুলো থেকেও একই ভাড়া আদায় করে আসছিল এ পরিবহনগুলো।

যাত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, রুকনুজ্জামান ও আরিফ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, আমরা পরিবহনগুলোর কাছে জিম্মি হয়ে আছি। অতিরিক্ত ভাড়া না দিতে চাইলে পরিবহনের স্টাফরা আমাদের নানা ধরনের হুমকি দেয় এবং অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। অপমানের ভয়ে আমরা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই যাতায়াত করে আসছি। দ্রুত সার্ভিস পরিবহন ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুর রহমান রশিদ বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়টি তিনি জানতেন না। এরপর থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হবে না।

Comments

comments