বার্সার তিনে তিন না রিয়ালের ফেরা?

১৩ আগস্ট, ২০১৭। স্প্যানিশ সুপারকাপের প্রথম লেগে ক্যাম্প ন্যুতে মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা এবং রিয়াল মাদ্রিদ। জেরার্ড পিকের আত্মঘাতী গোলে রিয়াল লিড নিলেও লিওনেল মেসির পেনাল্টিতে সমতায় ফেরে বার্সা। ইনজুরির কারণে পুরোপুরি ফিট ছিলেন না তিনি। নামলেন ম্যাচের ৬০ মিনিটের দিকে। মিনিট বিশেক পরই দুর্দান্ত এক গোলে দলকে লিড এনে দিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। বিতর্কিতভাবে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেও গোলের পর জার্সি উঁচু করে তার সেই উদযাপন ক্লাসিকো কল্পগাঁথায় বেঁচে থাকবে চিরকাল। ম্যাচের অন্তিম সময়ে মার্কো আসেন্সিও-র গোলে ৩-১ গোলের জয় নিয়েই ফিরল রিয়াল।

ফিরতি লেগে রোনালদো ছাড়াই আবারও বার্সাকে হারাল জিনেদিন জিদানের দল, ব্যবধানটা এবার ২-০ গোলের। ম্যাচ শেষে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে উপস্থিত ৭৫ হাজার এরও বেশি মাদ্রিদিস্তাদের সামনে আরও এক শিরোপাজয়ের উদযাপনটা সেরে নিল রিয়াল। টানা দু’বার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের পাশাপাশি লা লিগা, স্প্যানিশ এবং ইউরোপিয়ান সুপারকাপের শিরোপাটাও ঘরে তুলে নিল রিয়াল। ইউরোপ জুড়ে তখন ‘লস ব্লাঙ্কোস’দের নিরঙ্কুশ আধিপত্য। আর ওদিকে নেইমারের বদলি খুঁজতেই হিমশিম খেতে থাকা বার্সার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলছিলেন জাভি, গ্যারি লিনেকারের মত ক্লাব কিংবদন্তীরাই।

মাস চারেক পরের কথা। হিসাবনিকাশ যেন বদলে গেছে একেবারেই। আগস্টের সেই ‘অদম্য’ রিয়ালকে এখন চেনাটাই দায়। গত মৌসুমে গোলের বন্যা ভাসিয়ে দেওয়া রোনালদো গোল পাচ্ছেন না আগের মত; ফর্মে নেই লুকা মদ্রিচ, টনি ক্রুস, ইস্কোদের কেউই। ওদিকে মাস চারেকের ব্যবধানে যেন খোলনলচে বদলে গেছে বার্সার। স্বরূপে ফিরেছেন মেসি, লুইস সুয়ারেজরা। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, ইভান রাকিটিচদের পাশাপাশি দারুণ ফর্মে আছেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার পলিনহো, যাকে দলে ভেড়ানোয় বেশ সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছিল বার্সার বোর্ডকে।

আজ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে আবারও মুখোমুখি হচ্ছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের এই দুই মহীরুহ। রিয়ালের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে ১১ পয়েন্টে এগিয়ে আছে বার্সা। জিদানের দলের জন্য আজ তাই জয়ের কোনো বিকল্প নেই। ওদিকে আজ জিতলেই লা লিগার শিরোপা পুনরোদ্ধারের দৌড়ে আরও এগিয়ে যাবে মেসিরা।

অন্য খবর  ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের তিন ধাপ অবনমন; শীর্ষে আর্জেন্টিনা

‘গার্ড অফ অনার’ নিয়ে ভাবছেন না জিদানঃ

গত সপ্তাহেই জিতে এসেছেন ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা। রীতি অনুযায়ী রিয়ালকে ‘পাসিলো’ বা অভ্যর্থনা জানানোর কথা থাকলেও বার্সা সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ‘চিরশত্রু’দের জন্য এমন কিছুই করবে না তারা। অবশ্য মৌসুমের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে এসব নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না জিদান। সংবাদ সম্মেলনে ‘গার্ড অফ অনার’ নিয়ে সব প্রশ্নের দায় এড়িয়ে গেছেন এই ফ্রেঞ্চ কিংবদন্তী। কালকের ক্লাসিকো হারলে বার্সার সাথে এক ম্যাচ কম খেলা রিয়ালের পয়েন্ট ব্যববধান দাঁড়াবে ১৪-তে। এরপরও আজকের ক্লাসিকো হারলেই লা লিগার সম্ভাবনা শেষ বলে মানতে নারাজ জিদান, “কাল আমাদের হারানোর তেমন কিছুই নেই। ম্যাচটি অবশ্যই অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আজকের ম্যাচের পরও লা লিগার অনেকটা পথ বাকি থাকবে। তাই আমার মনে হয় না আজকের ফলাফলের ওপর পুরো লা লিগা মৌসুম নির্ভর করছে”।

নিজেদের ‘ফেভারিট’ মানতে নারাজ ভালভার্দেঃ

লা লিগার এখনও অপরাজিত তারা, মূল তারকা মেসি লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা। ফর্মে ফিরেছেন সুয়ারেজ। সেই সাথে টেবিলের শীর্ষস্থানটাও ধরে রেখেছে দীর্ঘদিন ধরে। এত কিছুর পরও আজকের ক্লাসিকোতে নিজেদের দিকে জয়ের পাল্লাটা ভারী- এমনটা কোনোভাবেই মানছেন না ভালভার্দে, “ক্লাসিকোতে কখনও কেউই ফেভারিট থাকে না। আমরা মৌসুমের শুরুতে রিয়ালের কাছে দু’বার হেরেছি, তবে ঐ ম্যাচগুলো আমরা খতিয়ে দেখেছি। রিয়াল প্রতি আক্রমণে দারুন এক দল, সেদিকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে”।

জিদানের মতই ক্লাসিকোর ওপর লা লিগা মৌসুম নির্ভর করছে- এ বিষয়ে একেবারেই একমত পোষণ করেননি ভালভার্দে।

পূর্ণশক্তির স্কোয়াড পাচ্ছেন জিদান, ভালভার্দের দুশ্চিন্তা ইনজুরিঃ

মৌসুমের সবচেয়ে বড় ম্যাচের আগে মূল স্কোয়াডের সবাইকেই পাচ্ছেন জিদান। ক্লাব বিশ্বকাপ ফাইনালে পায়ে ব্যথা পেলেও রোনালদোর শতভাগ ফিট, এমনটাই জানিয়েছেন রিয়ালের কোচ। সেই সাথে স্কোয়াডে থাকছেন গ্যারেথ বেলও।

অন্য খবর  অল স্টার টিমে খেলছেন যারা যারা

জিদানের মত স্কোয়াড নিয়ে একেবারে নিশ্চিন্তে থাকতে পারছেন না ভালভার্দে। ইনজুরির কারণে ম্যাচটি মিস করবেন স্যামুয়েল উমতিতি, উসমান দেম্বেলে, পাকো আলকাসের, জেরার্ড দেউলোফেউরা। দীর্ঘদিন ধরে বার্সা ছাড়ার গুঞ্জন ডালপালা ছড়ানোয় আজকের ম্যাচটিই হতে পারে হাভিয়ের মাসচেরানোর শেষ ক্লাসিকো।

সম্ভাব্য একাদশঃ

রিয়াল মাদ্রিদ (৪-৩-১-২): নাভাস; কারভাহাল, ভারান, রামোস, মার্সেলো; ক্রুস, কাসেমিরো, মদ্রিচ; ইস্কো; রোনালদো, বেনজেমা

বার্সেলোনা (৪-৪-২): টার স্টেগেন; রবার্তো, পিকে, মাসচেরানো, আলবা; পলিনহো, ইনিয়েস্তা, বুস্কেটস, রাকিটিচ; মেসি, সুয়ারেজ

সংখ্যায় সংখ্যায়ঃ

আজ গোল করলেই ক্লাসিকোর ইতিহাসে রিয়ালের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডে (আলফ্রেডো ডি স্টেফানো, ১৮) ভাগ বসাবেন রোনালদো। ২৪ গোল নিয়ে সবার ওপরে আছেন মেসি। আজ ২৩৭ নম্বর ক্লাসিকোতে মুখোমুখি হবে এই দুই দল। রিয়ালের জয় ৯৫টিতে, বার্সা জিতেছে ৯২টি। বাকি ৪৯টি ম্যাচ হয়েছে ড্র। বার্নাব্যুতে হওয়া ১১৫টি ক্লাসিকোতে বার্সার জয় মাত্র ২৬টি, রিয়াল জিতেছে ৬৪ বার। শেষ ১৬টি ক্লাসিকোতে বার্সার ৫ জয়ের বিপরীতে রিয়ালের জয় ৮টিতে। আজ জিতলে ৭৭-৭৮ মৌসুমে লুইস মোলোওনির পর রিয়ালের প্রথম কোচ হিসেবে টানা ক্লাসিকো জয়ের ‘হ্যাটট্রিক’ করবেন জিদান।

পয়েন্ট টেবিলে দু’দলের অবস্থা যেমনই হোক না কেন, এল ক্লাসিকো মানেই ভিন্ন কিছু। ক্লাব ফুটবলের অন্যতম ‘হাই-ভোল্টেজ’ এই ম্যাচের দিকেই আজ চোখ থাকবে সমগ্র ফুটবলবিশ্বের। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে কখনোই টানা তিন ক্লাসিকো জেতেনি বার্সা। বার্সা কি পারবে আজ সেই রেকর্ড গড়তে? নাকি জয় দিয়ে লা লিগার শিরোপাদৌড়ে ফিরবে রিয়াল? এতসব প্রশ্নের উত্তর জানা যাবে আজকের বহুল প্রতীক্ষিত এল ক্লাসিকোর পর। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায়, সরাসরি সম্প্রচার করবে টেন ১ এবং টেন ২।

Comments

comments