ফেরার প্রহর গুনছেন মোহাম্মদ আশরাফুল

33
আশরাফুল

আর মাত্র দুই দিন পরেই অর্থাৎ ১৩ অগাস্ট থেকে সকল প্রকার ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাচ্ছে মোহাম্মদ আশরাফুলের। আনুষ্ঠানিকভাবে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর জাতীয় দলের হয়ে খেলতেও আর বাঁধা থাকবে না তাঁর।

দীর্ঘ পাঁচ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ফেরার আনন্দটি যে আসলে কিরূপ হতে পারে সেটি সাবেক এই অধিনায়ক নিজেই জানিয়েছেন জনপ্রিয় ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে। এই সময়টির জন্য অধীর প্রতীক্ষাতে থাকা আশরাফুল বলছিলেন,  ‘আমি ২০১৮ সালের ১৩ই অগাস্টের জন্য দীর্ঘ প্রতীক্ষাতে ছিলাম। পাঁচ বছরের বেশি হয়েছে আমি নির্বাসিত অবস্থায় আছি। যদিও আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছি গত দুই আসরে, তবে এখন আমি জাতীয় দলের জন্যও উন্মুক্ত। বাংলাদেশের হয়ে আবারো খেলতে পারা আমার জন্য অনেক বড় একটি অর্জন হবে।’

ঢাকা প্রিমিয়ার লীগের (ডিপিএল) গত আসরে ব্যাট হাতে পাঁচটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের হয়ে খেলা আশরাফুল। এই ফর্মের ধারাবাহিকতা আগামী আসরেও ধরে রাখতে ইচ্ছুক দেশের সর্বকনিষ্ঠ এই টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান। তাঁর ভাষায়,  ‘আমার ফেরার প্রথম মৌসুমটি খুব একটা ভালো ছিল না, তবে আমি ২০১৭-১৮ এ ভালো খেলেছিলাম। আশা করি আসন্ন মৌসুমে আরও ভালো খেলতে পারবো।’

অন্য খবর  আমির থাকায় হাফিজ-আজহারের ক্যাম্প বর্জন

পুরোপুরি ফিট হয়ে আবারো ফিরতে এরই মধ্যে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন আশরাফুল। জাতীয় ক্রিকেট লীগের আসরকে সামনে রেখে একটি ট্রেনিং ক্যাম্পেও অংশ নিয়েছেন তিনি। নিজের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে আশরাফুল জানিয়েছেন,

এখন আমি আমার পারফর্মেন্স দিয়ে সুযোগ পেতে পারি। আমি এরই মধ্যে এক মাসের একটি ট্রেনিং প্রোগ্রাম অংশ নিয়েছি এবং ১৫ই অগাস্টের পরে জাতীয় ক্রিকেট লীগের আসরকে সামনে রেখে আরেকটি ট্রেনিং প্রোগ্রামে অংশ নিব।’

উল্লেখ্য ২০১৩ সালের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) আসরে স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে সবধরনের ক্রিকেট থেকে ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। পরবর্তীতে সেই নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে ৫ বছরে নামিয়ে আনা হয়।

Comments

comments