ফাইনালে ২ উইকেটে হারলো বাঘেনীরা

569
ফাইনালে হারলো বাঘেনীরা

ফাইনালে টানটান উত্তেজনায় শেষে আয়ারল্যান্ড নারী দলের কাছে ২ উইকেটে হারলো বাঘেনীরা। আর আইসিসি টি-টোয়েন্টি নারী বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের চ্যাম্পিয়ন হলো আইরিশরা। বাংলাদেশ হলো রানার্স আপ।

ব্যাংককের তেরথাই ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস জিতে আগে ব্যাট করে বাংলাদেশের মেয়েরা ৩ উইকেটে তোলে ১০৫ রান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১০৬ রান তুলে ফেলে আয়ারল্যান্ড। অবশ্য ফাইনালে উঠেই বাংলাদেশ আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্ব আসরে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে নিয়েছে।

শেষ ওভার আইরিশদের জিততে দরকার ছিল ৮ রান। সালমা খাতুন ছিলেন বোলার। প্রথম ৫ বলে ৭ রান তুলে ম্যাচ টাই করে ফেলে আইরিশরা। জেতার রানটি নেওয়ার জন্য ব্যাটিংয়ে ছিলেন নতুন ব্যাটার লুসি ও’রিলি। তিনি সিঙ্গেল নিয়ে ম্যাচ জিতিয়ে দেন দলকে।

ক্লেয়ার শিলিংটন (১২) ও সিসিলিয়া জয়েস (৩২) ভালো শুরু এনে দলকে। ২টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কা মারেন সিসিলিয়া। কিন্তু বাংলাদেশের মেয়েরাও আঘাত হানে। রুমানা আহমেদ ও নাহিদা আখতার দুটি করে উইকেট নেন। ৬৬ রানে ৫ উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। ইনিংসে ৪টি চার ও একটি ছক্কা মেরেছে আয়ারল্যান্ড। কিন্তু পঞ্চম ওভারের পর কোনো বাউন্ডারি আসেনি। বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে এক দুই রানের ওপর ভর করে এগুচ্ছিল তারা। রানের চাকা সচল রেখেছে তারা। ১৭, ১৮ ও ১৯ ওভারে আরো তিনটি উইকেট নিয়ে খেলা জমিয়ে তোলে বাংলাদেশের বোলাররা। কিন্তু ৩৬ বলে ২৬ রানে অপরাজিত থাকা লরা ডেলানি হারতে দেননি দলকে।

অন্য খবর  যেখানে শুধুই সাকিব

এর আগে ব্যাট করতে নেমে ষষ্ঠ ওভারে বাংলাদেশ হারিয়ে ফেলে ২ উইকেট। পরপর দুই বলে শারমিন আখতার (৯) ও লতা মণ্ডলকে (০) আউট করেন মেটক্যাফে। এরপর আর একটি উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। সেটি ১৯তম ওভারে। তৃতীয় উইকেটে নিগার সুলতানা ও রুমানা আহমেদ গড়েন ৭৪ রানের জুটি। ৫৭ বলে ২ বাউন্ডারিতে ৪১ রান করেন নিগার। তিনিও মেটক্যাফের শিকার হয়েছেন। ৪৩ বলে ১ বাউন্ডারিতে ৩৮ রানে অপরাজিত থাকেন রুমানা। ফারজানা হক অপরাজিত থাকেন ৬ রানে।

Comments

comments