প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং: শীর্ষে নর্থ সাউথ, দ্বিতীয় ব্র্যাক

83
প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং

বাংলা ট্রিবিউন-ঢাকা ট্রিবিউনের যৌথ উদ্যোগে দেশের প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিগুলোর র‌্যাংকিং করার উদ্দেশ্যে একটি গবেষণা পরিচালনা করা হয়। ২০১৯ সালে করা র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি। দ্বিতীয় স্থানে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি। এই গবেষণাটি পরিচালনা করেছে ওআরজি-কোয়েস্ট রিসার্চ লিমিটেড।

বাংলাদেশে বর্তমানে ১০১টি প্রাইভ্টে ইউনিভার্সিটি রয়েছে। এই গবেষণার মূল লক্ষ্য হলো এই ইউনিভার্সিটিগুলোকে একটি র‍্যাংকিংয়ের আওতায় আনা। ৬৫টি ইউনিভার্সিটিকে এই গবেষণার আওতাভুক্ত করা হয়নি। এরমধ্যে ৪১টি ইউনিভার্সিটিতে এখনও কোনও সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়নি, ১২টি ইউনিভার্সিটিতে ছাত্রভর্তি-প্রক্রিয়ায় ইউজিসির নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, ৮টি  ইউনিভার্সিটিতে এখনও শিক্ষা-কার্যক্রম শুরু হয়নি, ৩টি ইউনিভার্সিটি বিশেষায়িত ইউনিভার্সিটি  হিসেবে পরিচিত এবং একটিতে শিক্ষার্থী সংখ্যা ১ হাজারের নিচে থাকায় এসব ইউনিভার্সিটিকে বাদ দিয়ে বাকি ৩৬টির মধ্যে র‍্যাংকিংয়ের গবেষণাটি পরিচালিত হয়। ফ্যাকচুয়াল, পারসেপচুয়াল ও এই দু’টির স্কোরের সমন্বয়ে চূড়ান্ত র‍্যাংকিং নির্ধারণ করা হয়েছে।

পুরো প্রক্রিয়াটি আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে সম্পন্ন করা হয়। এই গবেষণার সমন্বিত ফলে দেখা গেছে, প্রথম স্থানে রয়েছে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, দ্বিতীয় স্থানে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি, তৃতীয় স্থানে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, চতুর্থ স্থানে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, পঞ্চম স্থানে আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, ষষ্ঠ স্থানে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, সপ্তম স্থানে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, অষ্টম স্থানে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, নবম স্থানে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ ও দশম স্থানে দ্য ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক রয়েছে।

অন্য খবর  ভারতে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ

ফ্যাকচুয়াল স্কোর নির্ণয়ে বিবেচ্য হয়েছে, শিক্ষার্থী সংখ্যা, শিক্ষক, পিএইচডি ডিগ্রিধারীদের সংখ্যা, গবেষণায় খরচ ইত্যাদি। এই তথ্যগুলো নেওয়া হয়েছে সরাসরি ইউনিভার্সিটিগুলোর কাছ থেকে। যেসব ইউনিভার্সিটি তথ্য সরবরাহ করেনি, কেবল সেসব ইউনিভার্সিটির ক্ষেত্রে ইউনিভার্সিটি গ্র্যান্ড কমিশনের ২০১৭ সালের প্রতিবেদন থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। ফ্যাকচুয়াল তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি ফ্যাকচুয়াল র‍্যাংকে সবার শীর্ষে অবস্থান করছে, দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, তৃতীয় স্থানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, চতুর্থ স্থানে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস ও পঞ্চম স্থানে আছে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশ।

পারসেপচুয়াল স্কোরগুলো নেওয়া হয়েছে অ্যাকাডেমিক (ডিন, বিভাগীয় প্রধান, অধ্যাপক, রেজিস্ট্রার) ও চাকরিদাতাদের কাছ থেকে। তারা বিভিন্ন সূচকে নিজেদের স্কোর দিয়েছেন। যেমন, শিক্ষার পরিবেশ, বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো, শিক্ষকদের মান, চাকরিক্ষেত্রে পাস করা শিক্ষার্থীদের কর্মদক্ষতা, নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা, যোগাযোগ দক্ষতা ইত্যাদি। পারসেপচুয়াল র‍্যাংকে দেখা যায়, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সবার শীর্ষে অবস্থান করছে। এছাড়া দ্বিতীয় স্থানে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি, তৃতীয় স্থানে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, চতুর্থ স্থানে আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ।

অন্য খবর  মাদরাসা উন্নয়নে সংসদ সদস্যরা পাবেন ৭০০০ কোটি টাকা

Comments

comments