পুরো কেরানীগঞ্জই যেন ময়লার ভাগাড়  

52
পুরো কেরানীগঞ্জই যেন ময়লার ভাগাড়  

কেরানীগঞ্জ জুড়ে ময়লা আবর্জনার স্তূপ বিরূপ পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধে বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। ফলে কেরানীগঞ্জের অনেক এলাকার জনস্বাস্থ্য বিপন্ন হওয়ার পথে। ঘনবসতিপূর্ণ আবাসিক এলাকা কেরানীগঞ্জ থেকে ময়লা আবর্জনা সম্প্রসারণের কথা থাকলেও, এসব আবর্জনা প্রধান সড়কেই ফেলা হচ্ছে। এ অবস্থায় কেরানীগঞ্জবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, শুভাঢ্যা, আগানগর, জিনজিরা, কালিন্দী, বন্দডাকপাড়া, বাস্তা ইউনিয়নসহ প্রায় সবক’টি ইউনিয়নের প্রধান প্রধান সড়কে ময়লা আবর্জনার স্তূপ তৈরি করে রেখেছে পাহাড় সমতুল্য। কেরানীগঞ্জকে পরিবেশবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহ এবং অপসারণ কার্যক্রম প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। আর এসব ময়লা আবর্জনাই ফেলা হচ্ছে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়কের পাশে ও আবাসিক এলাকার বিভিন্ন ফাঁকা স্থানে। দুর্গন্ধে এসব এলাকায় নাকে মুখে রুমাল চেপে চলতে হয়। আর বৃষ্টি হলে তো ওই সব রাস্তায় চলাই দায় হয়ে গড়ে। দুর্গন্ধে ওইসব এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় নিঃশ্বাস নেয়া কষ্টকর। অধিকাংশ বাসাবাড়ির দরজা জানালা সারাদিনই বন্ধ রাখতে হয়।

উপজেলার শুভাঢ্যা ইউনিয়নের বাসিন্দা আতাহার আলী জানায়, বাসাবাড়ি থেকে ময়লা সংগ্রহের জন্য উপজেলা প্রশাসনকে মাসকি চুক্তিতে ৭০ থেকে ১০০ টাকা দিতে হয়। কিন্তু এতে কোন সুফল পাচ্ছি না। বাসা থেকে ময়লা সংগ্রহ করে আশপাশে কোন ফাঁকা জায়গায় বা সড়কের পাশেই ফেলে রাখা হয়।এতে ভোগান্তি আরো বাড়ে চলছে।

অন্য খবর  কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানের ইফতারে চড়াও থানার ওসি

উপজেলা কমিশনার পারভেজুর রহমান (ভূমি অফিসার) জানায়, জিনজিরা, দোহার, নবাবগঞ্জ ও বান্দুরার হাজার হাজার মানুষ কেরানীগঞ্জ উপজেলার কোনাখোলা সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করে। জিনজিরার আগে বন্দডাক পাড়া  ময়লার স্তূপের জন্য প্রায়ই যানজট লেগে থাকে আর দুর্গন্ধ তো আছেই।

এছাড়াও চুনকুটিয়া, খেজুরবাগ, আগানগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ উপজেলার আর অনেক সড়কেই ময়লার স্তূপ দেখা যায়। অতি দ্রুতই এসব ময়লা আবর্জনা সম্প্রসারণ করে, ময়লা ফেলার জন্য স্থায়ী স্থান নির্ধারণ করা হবে।

Comments

comments