পিএসজিতে বিধ্বস্ত রিয়াল, জুভেন্টাস-অ্যাতলেতিকোর ড্র

7
পিএসজি

কাইলিয়ান এমবাপে নেই ইনজুরিতে, নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি নেইমার। দলের দুই সেরা খেলোয়াড়কে ছাড়াই রিয়াল মাদ্রিদকে উড়িয়ে দিয়েছে প্যারিস সেন্ত জার্মেই। বুধবার চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে ঘরের মাঠে রিয়ালকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে প্যারিসের ক্লাবটি। মাদ্রিদের আরেক ক্লাব অ্যাতলেতিকো নিজেদের মাঠে ২-২ গোলে ড্র করেছে জুভেন্টাসের সঙ্গে।

পার্ক দে প্রিন্সেসে আক্রমণভাগের তিন খেলোয়াড়ের কাউকে পায়নি পিএসজি। নেইমার-এমবাপের সঙ্গে ছিলেন না এদিনসন কাভানি। এরপরও রিয়ালের বিপক্ষে হাইভোল্টেজ ম্যাচে ৩-০ গোলে জিতেছে তারা আনহেল দি মারিয়ার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে। এই আর্জেন্টাইন করেছেন জোড়া গোল, অন্য গোলটি এসেছে থোমাস মুনিয়েরের কাছ থেকে।

শুরু থেকে আক্রমণাত্মক পিএসজি ১৪তম মিনিটে লিড নেয় দি মারিয়ার লক্ষ্যভেদে। ৩৩ মিনিটে এই উইঙ্গারের গোলেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে স্বাগতিকরা। আর দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমের প্রথম মিনিটে মুনিয়ের জাল খুঁজে পেলে বড় লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় রিয়ালকে।

২-০ গোলে পিছিয়ে পড়েও ড্র করেছে অ্যাতলেতিকোমাদ্রিদের আরেক ক্লাব অ্যাতলেতিকোও পড়তে যাচ্ছিল লজ্জার মুখে। ঘরের মাঠেই তারা হারতে বসেছিল জুভেন্টাসের বিপক্ষে। প্রথমার্ধে দাপট দেখালেও দ্বিতীয়ার্ধে জুভেন্টাসের আক্রমণ প্রতিহত করতে পারেনি ডিয়েগো সিমিওনের দল। ৪৮ মিনিটে হুয়ান কাদরাদোর লক্ষ্যভেদে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। ৬৫ মিনিটে ব্লাইস মাতুউদি জাল খুঁজে পেলে জয়ের স্বপ্ন দেখে সফরকারীরা।

অন্য খবর  চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা থেকে এক ম্যাচ দূরে রিয়াল মাদ্রিদ

তবে ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকে শেষ ২০ মিনিটে ঘুরে দাঁড়ায় অ্যাতলেতিকো। ৭০ মিনিটে স্তেফান সাভিচের গোলের পর নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে এক্তর এরেরা জাল খুঁজে পেলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছাড়ে মাদ্রিদের ক্লাবটি।

বড় জয় পেয়েছে ম্যানসিটিগোল উৎসব করেছে ম্যানচেস্টার সিটি। শাখতার দনেৎস্কের মাঠ থেকে তারা ফিরেছে ৩-০ গোলের জয় নিয়ে। ২৪ মিনিটে রিয়াদ মাহরেজের গোলে এগিয়ে যায় ইংলিশ ক্লাবটি। ৩৮ মিনিটে ইকের গুন্ডোয়ানের লক্ষ্যভেদে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় তারা। আর ৭৬ মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ান গাব্রিয়েল জেসুস।

ম্যানসিটির মতো ৩-০ গোলের জয় পেয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। ঘরের মাঠে তারা হারিয়েছে রেড স্টার বেলগ্রেডকে। আলিয়েঞ্জ অ্যারেনায় ৩৪ মিনিটে কিংসলে কোমানের গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। এরপর ৮০ মিনিটে স্কোরশিটে নাম তোলেন রবার্ত লেভানদোস্কি। আর ইনজুরি টাইমের প্রথম মিনিটে থোমাস ম্যুলার জাল খুঁজে পেলে বড় জয় তুলে নেয় জার্মান চ্যাম্পিয়নরা।

দিনের অন্য খেলায় ঘরের মাঠে মিসলাভ ওরসিচের হ্যাটট্রিকে ডায়নামো জাগরেব ৪-০ গোলে হারিয়েছে আতালান্তাকে। বেয়ার লেভারকুসেনের মাঠ থেকে ২-১ গোলে জিতে ফিরেছে লোকোমোতিভ মস্কো। অন্যদিকে অলিম্পিয়াকোসের মাঠ থেকে টটেনহাম ফিরেছে ২-২ গোলের ড্র নিয়ে। আর ক্লাব ব্রুজের মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছে গ্যালাতাসারাই।

অন্য খবর  শুক্রবার শুরু হচ্ছে মার্সেল বডি বিল্ডিং প্রতিযোগিতা

Comments

comments