পহেলা বৈশাখে মৈনটে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভীড়

670
পর্যটন আকর্ষণ মৈনট
মৈনট, দোহার, ঢাকা

বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষ পালন করলো ঢাকা দোহার নবাবগঞ্জবাসী। আর এ পহেলা বৈশাখে মৈনটে ঘুরতে আসে হাজার হাজার দর্শনার্থী। সকাল থেকেই পহেলা বৈশাখে মৈনটে বিভিন্ন স্থানে দেখা যায় দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভীড়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে দর্শনার্থীদের সংখ্যা ও বাড়তে থাকে ব্যাপক হারে। তারা উপভোগ করে মৈনটের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। কেউ কেউ প্রবল বাতাসে ঘুড়ি উরাচ্ছে, কেউ কেউ ভ্রমন করছে সি বোটে। কেউ বা ভিড় করছে হোটেল রেস্তরা গুলোতে, কেউ বা আবার ব্যাস্ত হয়ে পরছে প্রিয়জনের সাথে ছবি তুলতে। পহেলা বৈশাখের আনন্দের একটু ও যেন কমতি নেই দর্শনার্থীদের মাঝে।

মৈনটের বেশির ভাগ দর্শনার্থীরা আসেন ঢাকা বা ঢাকার আশেপাশের এলাকা থেকে। সেই সাথে মৈনট ঘাটের আশেপাশের মানুষেরাও যেন ভুল করছে না মিনিকক্সবাজারে আসতে। ঢাকা থেকে ঘুড়তে আসা দর্শনার্থী রাজু আহমেদ জানান, “আমরা মৈনটে ঘুরতে আসি, এখানকার সৌন্দর্য উপভোগ করতে।” আরেক দর্শনার্থী জানান, “এখানকার সুন্দর ও মনোরম পরিবেশ আমাকে মুগ্ধ করে, এই জন্য প্রতি বছর আমি মিনিক্সবাজারে আসি।”

অন্য খবর  মৈনটে পদ্মায় ডুবে ঢাবি’র দুই ছাত্র নিহত

নারী দর্শনার্থীরা পরছেন রং বেরঙ্গের শাড়ী, যুবকেরা পরছেন পাইজামা আর পাঞ্জাবী আর শিশুরা পরছেন গেঞ্জী সেই সাথে মাথায় গামছা বাধতে ও ভুল করছেন না তারা। সকল দর্শনার্থীরা যখন উপভোগ করছিলেন পহেলা বৈশাখ, হঠাৎ তাদের জন্য বাধা হয়ে দাড়ায় আকাশের ঘন কালো মেঘ। আর সেই সাথে গন্তব্য স্থানে যেতে মরিয়া হয়ে ওঠে দর্শনার্থীরা। তখন পদধুলিত হয়ে ২ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দর্শনার্থীরা রাস্তায় এলে দেখা দেয় তীব্র যানযট।

পহেলা বৈশাখের দিন বিকালে মৈনট ঘাট থেকে কার্তিক পুর পর্যন্ত ছিল তীব্র যানযট এই যানজটের ফলে দর্শনার্থীরা পরে চরম ভোগান্তিতে। গন্তব্য স্থানে যেতে সময় লেগে যায় মাত্রার চেয়ে বেশি। ভ্রমণপিপাসু মানুষের এখন একটাই দাবি মৈনটকে যেন করা হয় দেশের একটি অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র

Comments

comments