নিষেধাজ্ঞা শেষ : পদ্মায় ইলিশের বন্যা

190

ইলিশ আহরণের বাইশ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে। গতকাল মধ্যরাত থেকে পদ্মা- মেঘনায় ইলিশসহ সব ধরনের ধরছে জেলেরা। পহেলা অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর এ বাইশ দিন ইলিশের সর্বোচ্চ প্রজনন মৌসুম হওয়ায় সরকার পদ্মা-মেঘনার ১০০ শত কিলোমিটার এলাকা মাছের অভয়াশ্রম ঘোষণা দিয়ে সব রকম মাছ ধরা নিষিদ্ধ করে। এ ইলিশ রক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রতিবছর প্রশাসন অভিযান চালায়। কাল রাতে এই নিষেধাজ্ঞা শেষ হলেই ঝাকে ঝাকে ইলিশ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে। ফলে ইলিশে ইলিশে সয়লাব হয়ে গেছে দোহার-নবাবগঞ্জের মাছের বাজার। ইলিশ ছাড়া অন্য মাছ যেন উধাও হয়ে গেছে দোহার-নবাবগঞ্জের বাজার থেকে।

২২ দিনের নিষেধাজ্ঞায় দোহারের পদ্মায় মাছ ধরা বন্ধ থাকলেও অবৈধভাবে অনেকেই ইলিশ মাছ ধরেছেন এবং প্রশাসনের হাতে গ্রেফতারও হয়েছেন। দোহারে এই সময় ইলিশ ধরার অভিযোগে সাজা পেয়েছেন ৯ জন জেলে এবং ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস করেছে উপজেলা প্রশাসন। কিন্তু গতকাল রাতে মাছ ধরার জন্য পদ্মা আবার উন্মুক্ত হলে পেশাদারে জেলেসহ অপেশাদার অনেকেই জাল নিয়ে নেমে পড়েছিলেন প্রমত্ত পদ্মায়। পদ্মা কাউকে হতাশ করে নি। ফলে ঝাকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়েছে তাদের জালে। যার প্রভাব পড়েছে ইলিশের বাজার দরেও। আকৃতি ভেদে ইলিশের দাম নেমে এসেছে ২০০-৩০০ টাকার মাঝে। দোহারের বাহ্রাঘাট, মৈনট, বিলাশপুর, মেঘুলা, নারিশা, মুকসুদপুরসহ সব জায়গায় দেখা যাচ্ছে ইলিশের ছড়াছড়ি। এই ইলিশে একদিকে যেমন জেলেদের মুখে ফুটেছে হাসি ঠিক তেমনি সাধারন মানুষও খুশি কমদামে ইলিশের স্বাদ পেয়ে।

অন্য খবর  দিনে দুপুরে জয়পাড়া বাজারে চুরি

Comments

comments