নবাবগঞ্জ ও আফ্রিকার উগান্ডায় ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’

258
কৃষকের ঈদ আনন্দ অনুষ্ঠান
কৃষকের ঈদ আনন্দ অনুষ্ঠান

প্রথমবারের মতো মিডিয়াব্যক্তিত্ব শাইখ সিরাজ বাংলাদেশের কোনো চ্যানেলের অনুষ্ঠান নির্মাণ করলেন আফ্রিকার উগান্ডায়। সেই সাথে বাংলাদেশের কৃষকের ঈদ আনন্দ শুটিং হলো নবাবগঞ্জে।

যে সময় পৃথিবীর উন্নয়ন সহযোগীদের দৃষ্টি আফ্রিকায় এবং আফ্রিকাকে কেন্দ্র করে অসংখ্য উন্নয়নমূলক কাজ পরিচালিত হচ্ছে, সে সময় আফ্রিকা কৃষি বিপ্লবের সঙ্গে দেশীয় কৃষকের মেলবন্ধ করাতে নির্মিত হলো কৃষকের ঈদ আনন্দ।

অনুষ্ঠানটি দুই ভাগে নির্মিত হয়েছে। প্রথম অংশে উগান্ডায় এবং পরবর্তী অংশ ঢাকার ঐতিহ্যবাহী নবাবগঞ্জ উপজেলার চুরাইন মাঠে। ঢাকার নিকটতম কৃষিনির্ভর জনপদ নবাবগঞ্জে।

দুই দেশের কৃষকদের সম্পর্কে মূল্যায়ন করে শাইখ সিরাজ বলেন, বাইরের দেশের কৃষকরা প্রযুক্তিনির্ভর। আর আমাদের দেশের কৃষকরা প্রকৃতিনির্ভর।

আমাদের দেশের কৃষকরা কতটা প্রতিকূলতায় কাজ করেন তা অবশ্য অন্যদের না দেখলে বোঝা যাবে না। আফ্রিকার বিচিত্র মানুষ, বিচিত্র জীবনধারাকে গুরুত্ব দিয়ে পূর্ব আফ্রিকার নাতিশীতষ্ণ জলবায়ুর দেশ উগান্ডার কৃষক-কৃষাণীরা অংশ নিয়েছেন কয়েকটি মজার প্রতিযোগিতায়। বিশ্ব বাস্তবতায় কৃষি ও পুষ্টির বর্তমান পরিস্থিতিকে গুরুত্ব দিয়ে উগান্ডার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে এম বারারা জেলার কাবোহে নামক এলাকার একটি মাঠে করা হয় ওই আয়োজন। এ উপলক্ষে সেখানে উপস্থিত হন এলাকার বহুসংখ্যক কৃষক-কৃষাণী। তারা অংশ নেন বালিশ লড়াই, কমলা শাসযুক্ত মিষ্টি আলুর গুঁড়া থেকে আয়রন বিন খোঁজা, মা ও ছেলের আয়রন বিন দৌড় ও তৈলাক্ত কলাগাছে ওঠা।

অন্য খবর  সড়কজুড়ে দুর্ভোগের নিখুঁত আয়োজন!

উল্লেখ্য, উগান্ডাবাসীর প্রধান খাদ্য কলা, বিন ও মিষ্টি আলু। বর্তমানে সেখানে বায়োফার্টিফিকেশনের মাধ্যমে বিনকে আয়রনসমৃদ্ধ করা হয়েছে। সেগুলোর জনপ্রিয়তাও বেশ। একইভাবে কমলা শ্বাসযুক্ত মিষ্টি আলু চাষ ও খাদ্য হিসেবে ব্যবহারে কৃষককে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। ওই বর্ণাঢ্য আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে কৃষিসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা পর্যন্ত। কৃষকের ঈদ আনন্দ উপলক্ষে উগান্ডার প্রত্যন্ত এলাকার এক কৃষি ক্লাবের কৃষক পরিবারের তরুণী সদস্যরা বাংলা গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন। এদিকে কৃষকের ঈদ আনন্দ অনুষ্ঠানে এবার উগান্ডার বিভিন্ন এলাকা থেকে তুলে আনা হয়েছে বিচিত্র ও চিত্তাকর্ষক তথ্যচিত্র, যা দর্শকদের অবাক করবে।

এ প্রসঙ্গে শাইখ সিরাজ বলেন, দর্শনীয় স্থানগুলো সব সময়ই দেখাই আমরা। এখানেও আছে। আছে নীলনদের উৎপত্তিস্থল, বিষুবরেখা নিয়ে মজার প্রতিবেদন। তিনি আরও বলেন, আফ্রিকার মানুষও মুসলমান। তাই কৃষকের ঈদ আনন্দ এবার বিশ্বজনীন হয়ে যাবে।

ঢাকার অংশে রয়েছে নবাবগঞ্জ এলাকার কৃষকদের নিয়ে কয়েকটি খেলাধুলা। এর মধ্যে ছিল বালিশ লড়াই, শিশুদের উল্টো দৌড়, আটা থেকে জিংকসমৃদ্ধ ধান খোঁজা, বিপরীতমুখী দৌড় ও তৈলাক্ত কলাগাছে ওঠা। এসব খেলাধুলার পাশাপাশি এবারও কৃষকের ঈদ আনন্দের অনন্য আকর্ষণ হিসেবে থাকছে নবাবগঞ্জ ও তার সংলগ্ন মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর এলাকার ঐতিহাসিক ও অজানা কিছু বিষয় নিয়ে প্রামাণ্য প্রতিবেদন। কৃষকের ঈদ আনন্দ প্রচারিত হবে ঈদের দ্বিতীয় দিন ২৬ সেপ্টেম্বর, শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায়।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জের তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী সালাউদ্দিন গ্রেফতার

Comments

comments