নবাবগঞ্জে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামী গ্রেপ্তার

248
স্ত্রী হত্যা

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় স্ত্রীকে ছুরি মেরে হত্যার অভিযোগে স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলার বান্দুরা ইউনিয়নের মাঝিরকান্দা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘাতক স্বামী মো. আরফান আলী (৩৮) উপজেলার কলাকোপা ইউনিয়নের বাগ বিবিরচরের মৃত সোহরাব উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার সন্ধ্যায় স্বামী আরফানের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয় স্ত্রী নুরজাহান (২৮)। বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী নিহতের একমাত্র কন্যা সুমাইয়া ইসলাম তিথী জানান, সোমবার সন্ধ্যায় তার মা নুরজাহান আলমারিতে থাকা প্রশাধনী পন্য দোকানে নিয়ে বিক্রি করতে চাইলে আরফান তাতে দ্বিমত করলে তাদের মধ্যে বাকবিতাণ্ডা হয়। এক পর্য়ায়ে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে আরফান আলী। এতে নুরজাহানের পেটের অধিকাংশই কেটে যায়।

নিহতের মা রুবি বেগম বলেন, স্থানীয়রা আমার মেয়েকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেয়। পরে হাসপাতালে রুহুল নামে এক ব্যক্তি পরামর্শে মেয়েকে পাশ্ববর্তী প্যারাগন হাসপাতালে ভর্তি করি। ঐদিন রাতে ডাক্তার অপারেশনও করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সন্ধ্যায় মেয়ের অবস্থার অবনতি হলে রাতেই ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে ভর্তি করি। বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

অন্য খবর  আর্সেনিক আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার দাবীতে নবাবগঞ্জে বিক্ষোভ

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের বাবা শুক্রবার দুপুরে নিহতের স্বামীকে একমাত্র আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে শুক্রবার সকালে আরফানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার সকালে তাকে আদালতে পাঠানো হবে।

নিহতের বাবা নুরু শিকদার বলেন, ঝগড়া বিবাদ সংসারের একটি অংশ। সেজন্য কি মেরে ফেলতে হবে। আমি আমার মেয়ের হত্যাকারীর ফাঁসি চাই।

Comments

comments