আসন্ন ইউপি নির্বাচনঃ নবাবগঞ্জে প্রচারণায় ব্যস্ত সম্ভাব্য প্রার্থীরা

743

সংসদীয় আসন ঢাকা-১ বলে পরিচিত নবাবগঞ্জে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক না হলেও নবাবগঞ্জ উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। বসে নেই সংরক্ষিত আসনে মহিলা প্রার্থীরাও। বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশাপাশি প্রার্থী তালিকায় রয়েছে এক ঝাঁক নতুন মুখ। সবচেয়ে বেশি সক্রিয় রয়েছে তরুণ প্রার্থীরা।

নির্বাচনে নবাবগঞ্জ সদর কলাকোপা ইউনিয়ন থেকেই সম্ভাব্য ৬ প্রার্থীকে মাঠে প্রচারণা চালাতে দেখা যাচ্ছে। তবে ৪০ বছরের পুরনো চেয়ারম্যান  তৈয়ব আহম্মেদ এবার এই ইউনিয়নে প্রার্থিতা না করায় গতবার মাত্র ২১২ ভোটে ফেল করা প্রার্থী আলহাজ্ব মো. ইব্রাহীম খলিল এবার আলোচনায় অনেকটাই এগিয়ে থাকছেন ভোটারদের কাছে। এছাড়াও মাঠে রয়েছে আ’লীগ সমর্থিত আরো দুই প্রার্থী। তারা হলেন সাবেক ঢাকা জেলা ছাত্রলীগ নেতা মীর আরিফ হোসেন, তরুণ প্রার্থী সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতা ও দোহার-নবাবগঞ্জ কলেজের সাবেক ভিপি ওয়াহিদুজ্জামান রনি।

কলাকোপায় বিএনপিতেও রয়েছেন একাধিক প্রার্থী। তারা হলেন সাবেক ছাত্রদল নেতা বর্তমান বিএনপি নেতা মহসিন আহেমদ তুষার। সাবেক যুবদল নেতা এবং বর্তমান বিএনপি নেতা মহসিন উদ্দিন পলাশ এবং মামুন খানকে মাঠে দেখা যাচ্ছে।

শিকারীপাড়া ইউপিতে নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে বর্তমান চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসাবে আলীমোর রহমান খান পিয়ারা, মোজাম্মেল হক টিপু এবং আব্দুস সালামের নাম শোনা যাচ্ছে।

অন্য খবর  দোহারে সওজের রাস্তা নির্মানে ফাঁকি তদন্তে সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী

অপরদিকে বিএনপি’র একক প্রার্থী হিসাবে প্রচারণায় রয়েছেন আব্দুল জব্বার। জয়কৃষ্ণপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. মোতাহার হোসেন, আবুল হোসেন, আকমল হোসেন এবং ফরিদ হোসেনকে মাঠে দেখা যাচ্ছে তবে এই ইউনিয়নে বিএনপি’র কোনো প্রার্থীকে এখনো প্রচারণায় দেখা যাচ্ছে না।

বারুয়াখালীতে আ’লীগের মো. রওশন আলী, মোশারফ মোল্লা ও ইঞ্জিনিয়ার আরিফ শিকদার এবং বিএনপি’র বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল-মামুন এবং আলহাজ্ব রজ্জব মোল্লা। অপরদিকে জাতীয় পার্টিতে রয়েছেন একজন প্রার্থী রুবেল মোল্লা।

বান্দুরা ইউনিয়নে আ’লীগের নাছির উদ্দিন পান্নু, দেওয়ান মুসলেম, শামসুল হক ও নাছির উদ্দিন। তবে এখানে বর্তমান চেয়ারম্যান এবং বিএনপি’র সমর্থিত হিল্লাল মিয়া ছাড়া অন্য কাউকে প্রচার-প্রচারণায় দেখা যাচ্ছে না।

নয়নশ্রীতে আ’লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান পলাশ চৌধুরী, হাবিবুর রহমান হাবিব, অ্যাডভোকেট নান্নু ও ড. অমল চন্দ্র শীল। বিএনপি’র হাবিবুর রহমান খান পান্নু এবং মো. হাবিব। জাতীয় পার্টির রিপন মোল্লা, মাসুদ মোল্লা এবং তরুণ প্রার্থী সোহেল তালুকদার।

পার্শ্ববর্তী যন্ত্রাইল ইউনিয়নে আ’লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান নন্দ লাল সিং, নবাবগঞ্জ উপজেলার আ’লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহম্মেদ ঝিলুর ভাগ্নে মনিরুজ্জামান (তুহিন), আশিকুজ্জামান হিরন, সাবেক চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির এবং আবুল কালাম আজাদ। এ ইউনিয়নে বিএনপি’র কোনো প্রার্থীকে এখনো প্রচারণায় দেখা যায়নি।

শোল্লা ইউনিয়নে আ’লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান ফজলুল হক ফজল, মো. দেলোয়ার হোসেন খান, মিজানুর রহমান কিসমন, তরুণ প্রার্থী দেওয়ান তুহিন রহমান, দেওয়ান আব্দুল আওয়াল, কুতুব উদ্দিন চুন্নু, মো. আব্দুল কায়েম, বিএনপি থেকে নাসির আহসান পলাশ এবং পবন মাহমুদ।

অন্য খবর  দোহারে পরীক্ষা হলে শিশুর স্ট্রোক

কৈলাইল ইউনিয়নেও আ’লীগ থেকে নাছির উদ্দিন আহম্মেদ, আজাহার আহম্মেদ বাবুল, আব্দুল হক, মো. পান্নু, হুমায়ুন কবির এবং বশির মিয়া। বিএনপি’র এম রশিদ ও হুমায়ুন মোল্লা।

বক্সনগর ইউনিয়নে আ’লীগের প্রার্থী হিসাবে মাঠে প্রচারণায় রয়েছেন আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া, জাহাঙ্গীর সিকদার, মো. শের আলী, বিএনপি প্রার্থী হিসাবে বর্তমান চেয়ারম্যান এরশাদ আল-মামুন ছাড়া আর কাউকে মাঠে দেখা যাচ্ছে না। তবে জাতীয় পার্টির মো. মোরাদ মিয়া এবং আবুল হোসেন প্রচারণায় রয়েছেন। আগলা ইউনিয়নে আ’লীগ ও বিএনপি’র রয়েছে একজন করে প্রার্থী তারা হলেন আ’লীগের সুরুজ খান এবং বিএনপি’র সমর্থিত এবং বর্তমান চেয়ারম্যান আবেদ হোসেন।

গালিমপুর ইউনিয়নে আবার আ’লীগের রেজাউর রহমান রেজা, আজিজুর রহমান ভুঁইয়া, লুত্ফর বেপারী। তবে বিএনপি’র একক প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান তপন মোল্লা।

চূড়াইন ইউনিয়নে আ’লীগের আব্দুল জব্বার ভুঁইয়া, আব্দুল বাসেত মিয়া, হাজী মো. জাহাঙ্গীর মোল্লা এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম সাইফুল ইসলাম। অপরদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান আবু সাঈদ, হাজী ইউসুফ আলী খান এবং আব্দুল আলীম সিকদার।

Comments

comments