নবাবগঞ্জে অপহরনের পর শিক্ষার্থীকে হত্যা

289
নবাবগঞ্জে অপহরনের পর শিক্ষার্থীকে হত্যা

ঢাকার নবাবগঞ্জের জয়কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ঘোষাইল গ্রামের কলেজ শিক্ষার্থী হৃদয় হোসেন (১৭) এর লাশ নিখোঁজের ১৫ দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ । সে শিকাড়ীপাড়া তোফাজ্জল হোসেন ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেনির শিক্ষার্থী। হৃদয় ঘোষাইল গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

হৃদয়ের স্বজনদের কাছে জানা যায়, গত ১৪ নভেম্বর সন্ধায় তাকে অপহরণ করা হয়। পরে তার মুক্তিপণ বাবদ মুঠোফোনে ৫ লাখ টাকা দাবি করে দূবৃত্তরা। এ ব্যপারে হৃদয়ের মা ময়না বেগম বাদি হয়ে ২ জনকে আসামী করে নবাবগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ এই ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে শাওন মোল্লা (২০) নামের একজনকে আটক করেছে। সে আর ঘোষাইল গ্রামের সাইদুল মোল্লার ছেলে। মামলার অপর আসামী একই গ্রামের সাহেদ মোল্লার ছেলে পারভেজ মোল্লা।

২২ নভেম্বর তার (হৃদয়ের ) মার কাছে ছেলের মুক্তিপণের জন্য ৫ লাখ টাকা দাবি করে। তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এর আগে ছেলের খাবার জন্য ১০ হাজার টাকা বিকাশ করেন। প্রথমে বিকাশ নাম্বারের সূত্র ধরে দূর্বৃত্ত শাওনকে আটক করে পুলিশ। পরে তার দেয়া তথ্যে আজ হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করা হলো। একই গ্রামের মহিন ব্যাপারীর পরিত্যক্ত পুকুরে তার লাশ পাওয়া যায়।

অন্য খবর  গণমানুষের জন্যই আমার রাজনীতি;অ্যাডঃ সালমা ইসলাম এমপি

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক মো. মহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জেরে হৃদয়কে হত্যা করা হয়েছে।

Comments

comments