ধূমপান থেকে দূরে যাঁরা

121
ধূমপান থেকে দূরে যাঁরা
বিজ্ঞাপন

মানুষ অভ্যাসের দাস—প্রবাদটি সাধারণ মানুষ কিংবা তারকা কমবেশি সবার ক্ষেত্রেই খাটে।  কোনো অভ্যাস কি সহজে ছাড়া যায়? ধূমপানের মতো ক্ষতিকারক অভ্যাস থেকে নিজেকে সরিয়ে আনা বেশ কঠিনই ভাবেন অনেকে। এই কঠিন কাজটিই করেছেন অনেক তারকা। নিজেকে সরিয়ে এনেছেন ধূমপান থেকে। আজ পড়ুন এমনই কয়েকজন তারকার কথা

লোকলজ্জায় ধূমপান ছেড়েছেন জেনিফারঃ হলিউড তারকা জেনিফার অ্যানিস্টন অনেক দিন ধরেই ধূমপানে আসক্ত ছিলেন। ২০১২ সালে ধূমপান ছেড়ে দেন। ধূমপানের কারণে তাঁর ওজন বেড়ে গিয়েছিল। তাতে সবাই ভেবেছিল, জেনিফার গর্ভবতী। বন্ধুদের কাছ থেকে শুভেচ্ছাবার্তা পেতে পেতে এতটাই বিরক্ত ছিলেন যে ধূমপানকে বিদায় জানান এই তারকা।

বই পড়ে ধূমপান ছেড়েছেন অ্যাস্টনঃ নব্বইয়ের দশকে স্টাইল করার জন্যই নাকি ধূমপান শুরু করেছিলেন অ্যাস্টন কুচার। শৈশবে সিনেমা দুনিয়ার তারকাদের ধূমপান দেখে অনুকরণ করতেন। এই তারকা ২০১০ সালে ব্রিটিশ লেখক অ্যালেন কারের ধূমপান ছাড়ার উপায়ের ওপর একটি বই পড়ে ধূমপান ছাড়তে সক্ষম হন। অ্যালেন কারের বই পড়ে মাত্র ৯ সপ্তাহে ধূমপানমুক্ত জীবন শুরু হয় তাঁর।

২০ বছর পরে ধূমপানকে নাঃ ব্যাটম্যান তারকা বেন অ্যাফ্লেক পর্দায় দুষ্টের দমনে ব্যস্ত থাকলেও বাস্তবে ধূমপানে বেশ আসক্ত ছিলেন। ২০ বছরের বেশি সময় ধরে নিয়মিত ধূমপান করেছেন। অনেক চেষ্টার পরও ধূমপান ছাড়তে পারেননি তিনি। আসক্তির কারণে পরিবার থেকে অনেক বার দূরে চলে গিয়েছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত মেডিকেশনের মাধ্যমে ২০১৭ সালে ধূমপানের অভ্যাস কাটিয়ে ওঠেন বেন।

অন্য খবর  সেন্সর বোর্ডের প্রশংসায় ‘জান্নাত’

সন্তানই যখন সব কঙ্কনারঃ  বলিউড অভিনয়শিল্পী কঙ্কনা সেন শর্মা বেশ ধূমপানে আসক্ত ছিলেন। ছেলে হওয়ার কথা জেনেই ধূমপান ছাড়ার জন্য মনস্থির করেন। এক সপ্তাহের চেষ্টাতে সন্তানের কথা ভেবে ধূমপান ছেড়ে দেন কঙ্কনা। সে সময় থেকে ধূমপায়ী বন্ধুদের সঙ্গ ত্যাগ করেন তিনি। এক সাক্ষাৎকারে কঙ্কনা জানান, ‘যেখানে আমি নিয়মিত ধূমপান করতাম, সেখানে সন্তানের কথা ভেবে ধূমপান ছেড়ে দিই আমি। মাতৃত্বের দায়বদ্ধতা অনেক।’

ধূমপানই যাঁর ছিল সবঃ  পরিচালক ‘ওকে’ বলার সঙ্গে সঙ্গেই ক্যামেরার সামনে থেকে সরে গিয়ে ধূমপান করতেন শার্লিজ থেরন। ডেভিলস অ্যাডভোকেট তারকা কৈশোর থেকেই ধূমপানে আসক্তি ছিল। ভোগ ম্যাগাজিনকে তিনি জানিয়েছিলেন, ‘আমি সাধারণ মানুষের মতো কম ধূমপান করতাম না। আমি ধূমপান না করলে মরে যেতাম।’ দুই সন্তান অগাস্ট আর জ্যাকসনের কথা ভেবে ২০১১ সালে ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। মাসখানেক চেষ্টা করে চিরতরে নিজেকে ধূমপান থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে আসেন এই তারকা।

সন্তানের জন্য ধূমপানে আমিরের নাঃ একসময় বলিউড অভিনেতা আমির খান বেশ ধূমপানে আসক্ত ছিলেন। মেয়ে ইরা আর ছেলে জুনায়েদ নাকি আমিরকে অনেক বার ধূমপান ছাড়তে জোর করত। মাঝেমধ্যে সন্তানদের অনুরোধে ধূমপান থেকে দূরে থাকতেন আমির। সন্তানদের সঙ্গে আমিরের ধূমপান নিয়ে বেশ কথা–কাটাকাটির কথা জানা যায়। সেই আমির তাঁর তৃতীয় সন্তান আজাদ জন্মের সময় একেবারে ধূমপান ছেড়ে দেন।

অন্য খবর  ‘চেস্টার, তুমি আমাদের হৃদয় ভেঙে দিয়েছো’

প্রেমিকের কথায় ক্রিস্টেনের ধূমপানকে নাঃ  ২০০০ সালের পরে মানসিক অস্থিরতার কারণে টোয়াইলাইট তারকা ক্রিস্টেন স্টুয়ার্ট ধূমপান শুরু করেন। শুরুতে টুকটাক হলেও একসময় ধূমপানে বেশ আসক্ত হয়ে পড়েন। এক দশকের বেশি সময় ধূমপানে আসক্ত থাকলে ২০১১ সালে ক্রিস্টেন তখনকার প্রেমিক রবার্ট প্যাটিনসনের কারণে ধূমপান ছেড়ে দেন। রবার্ট নাকি বেশ শাসনের মধ্যে রাখতেন ক্রিস্টেনকে। হয় রবার্ট, না হয় ধূমপান—যেকোনো একটিকে বেছে নেওয়ার অবস্থায় ধূমপানকে ছেড়ে দেন ক্রিস্টেন।

Comments

comments