দৌড়ে কখনো দ্বিতীয় না হওয়া এসিল্যান্ড সালমার গল্প

966

রাজধানীতে প্রতিনিয়ত কোথাও না কোথাও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। অনেক ঘটনার খবরও পাওয়া যায় না। এই অবস্থার মধ্যে একটি ছিনতাইয়ের ঘটনা বেশ তোলপাড় সৃষ্টি করেছে। ঘটনাটি ঢাকার দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সালমা ইসলামের গলার চেইন ছিনতাইয়ের।

একজন সরকারি কর্মকর্তার স্বর্ণালঙ্কার ছিনতাই হয়েছে সে কারণে বিষয়টি আলোচনায় এমনটা কিন্তু নয়। শনিবার বিকালে রাজধানীর রামপুরার হাজীপাড়ায় ছিনতাইয়ের শিকার হওয়ার পর এই নারী কর্মকর্তা এক কিলোমিটারের মতো দৌড়ে গিয়ে ছিনতাইকারীকে পাকড়াও করেন। পরে পুলিশ ডেকে তাদের হাতে তুলেও দিয়েছেন সালমা ইসলাম।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সালমা ইসলামের এমন সাহসিকতার গল্প ঘুরছে।

৩৩তম বিসিএসের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা সালমা ইসলামের জন্ম মাগুরার মোহাম্মদপুর উপজেলায়। ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়া খেলাধুলায় ভালো ছিলেন তিনি। ২০০৩ সালে এসএসসি ও ২০০৫ সালে এইচএসসি পাস করেন। পরবর্তী সময়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি বিভাগে  স্নাতক-স্নাতকোত্তর শেষ করে প্রশাসন ক্যাডারে যোগ দেন সালমা।

শিক্ষাজীবনের ক্রীড়া নৈপুণ্য পেশাগত জীবনে এসেও প্রমাণ দিয়েছেন এই কর্মকর্তা। বিসিএস কর্মকর্তাদের মৌলিক প্রশিক্ষণে ম্যারাথনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। ‘ল’একাডেমির প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণে বাস্কেটবল, টেবিল টেনিস, বিতর্কে হয়েছেন চ্যাম্পিয়ন।

অন্য খবর  কাল দোহার আসছেন অর্থমন্ত্রী

সালমা খাতুন জানান, শনিবার বিকালে রিকশায় করে বনশ্রী থেকে পল্টনে যাচ্ছিলেন। রিকশা যখন পশ্চিম হাজিপাড়া পেট্রোল পাম্পের কাছে পৌঁছায় তখন টের পান তার কাঁধ কেউ খামচে ধরেছে। ঘুরে দেখতে পান এক যুবক তার গলার চেইনটি নিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যাচ্ছে।

কিছু না ভেবে শাড়ি পরিহিত অবস্থায় রিকশা ছেড়ে পিছু নেন ছিনতাইকারীর। প্রায় এক কিলোমিটার দৌড়ে ধরে ফেলেন যুকবকে। উদ্ধার করেন তার চেইনের খণ্ডাংশ। ছিনতাইয়ের সময় লকেটসহ চেইনটি টুকরো হয়ে যাওয়ায় চেইনের পুরো অংশটি উদ্ধার করতে পারেননি তিনি।

চেইন উদ্ধার করেই থামেননি সালমা। সঙ্গে সঙ্গে ফোন করেন ৯৯৯ নম্বরে। সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে ফোর্স পাঠাতে বলে হাতিরিঝিল থানায় গিয়ে ৩৭৯ ধারায় মামলা দায়ের করে ছিনতাইকারীকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

তার এমন সাহসিকতা দেখে সেখানে থাকা বেশ কয়েকজন নারীকে তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে এগিয়ে আসেন বলেও জানান তিনি।

সালমা খাতুন মনে করেন, একজন নারীর সাহসিকতা দেখে দশজন নারী এগিয়ে আসবে। তারাও প্রেরণা পাবে সাহস নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার।

তিনি বলেন, আমরা ১০ বছর আগে ২০ বছর আগে যেখানে ছিলাম আমরা এখন সেখানে নেই। নারীকে তার ক্ষমতায়নের বিষয়টি বুঝতে হবে।

অন্য খবর  কনকনে ঠাণ্ডায় নাকাল হতদরিদ্র মানুষ

তার মতে, সাহসিকতার ভিন্ন কোনো সংজ্ঞা নেই। যেকোনো অপরাধ সংঘটনের প্রাথমিক পর্যায়ে যদি আমরা পুলিশ আসার অপেক্ষায় না থেকে সাহস করে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারি তাহলে অনেক কিছুই আগেভাবে সমাধান হতে পারে।

ডিএমপির শিল্পাঞ্চল জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) সালমান হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওই নারীর গলার চেইন ছিনিয়ে নিয়েছিল এক ছিনতাইকারী। নারী ও স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে। এই ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।’

Comments

comments