দোহার–নবাবগঞ্জ আসন আলাদা চাই, চাই নাঃ নিউজ৩৯ কে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎকারঃ পর্ব – ১

635

দীর্ঘদিন দোহার, ঢাকা-১ ও নবাবগঞ্জ, ঢাকা-২ সংসদীয় আসন হিসাবে আলাদা ছিল। কিন্তু হটাৎ করেই বিগত সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকারের আমলে শামসুল হুদা নির্বাচন কমিশন দোহার-নবাবগঞ্জ আসন এক করে ঢাকা-১ আসনে পরিণত করে। কিন্তু সে সময়ের ঢাকা-৩ আসন তথা কেরাণিগঞ্জ উপজেলাকে দুই ভাগ করে ঢাকা-২ ও ঢাকা-৩ আসনে পরিণত করে। বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘদিনই ঢাকা দক্ষিণ অঞ্চলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে। সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন ৩৮টি সংসদীয় আসন পূণর্বিন্যাস এর খসড়া করেছে। সেখানে দোহার-নবাবগঞ্জ তথা  ঢাকা-১ আসন অপরিবর্তিত রেখেছে। এতে ব্যাপারটি নিয়ে আবারো শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে ঢাকা- ১ সংসদীয় আসনের বর্তমান এমপি সালমা ইসলাম বলেন, তিনি চান আসন এক থাকুক, এতে উন্নয়ন বেগবান হবে। আলাদা হলে বরাদ্দ কমে যেতে পারে কারণ তা ভাগ হবে। আর দোহার নবাবগঞ্জের মানুষ একই সংস্কৃতির অধিকারী। তাই এই আসন এক থাকাটাই আমি সমর্থন করি।

নিউজ৩৯ এর কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বলেন, দোহার – নবাবগঞ্জের উন্নয়নের স্বার্থে, একই সাথে প্রশাসনিক সেবা তৃণমূলে পৌছে দেয়ার জন্যই আগে যেমন ছিল, তেমন ভাবেই দোহার – নবাবগঞ্জ আলাদা হতে হবে। আমি ঢাকা – ০১ আসনের পরপর ৩ বারের নির্বাচিত সংসদ, আমি মনে করি অবশ্যই আলাদা হতে হবে। শুনেছি আরও কয়েকজনের আবেদনের কথা, এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের শুনানীর সময় আমি অবশ্যই উপস্থিত থাকবো এবং আলাদা করার কারণের যৌক্তিকতা তুলে ধরবো।

নিউজ৩৯ এর কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে সাবেক গৃহায়ণমন্ত্রী এডভোকেট আব্দুল মান্নান খান বলেন, নির্বাচন কমিশন সবকিছু চিন্তা ভাবনা করেই পূর্বে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ভবিশ্যতেও নিবে। নির্বাচন কমিশন এই আসন নিয়ে সব কিছুই জানে। আমি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন কর্মি হিসাবে নির্বাচন কমিশনের প্রতি শ্রদ্ধা, আন্তরিকতা আছে এবং একই সাথে যে কোন ধরনের প্রয়োজনে আমি নিষ্ঠাবান থেকে আন্তরিক সহযোগীতা করবো।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ স্বল্প কথায় বলেন, এটা আসলে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত। তবে আমি মনে করি এক থাকাটাই ভালো। এতে দুই উপজেলার জনগণেরই উপকার হবে।

অন্য খবর  আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় উপকমিটিতে স্থান পেলেন ওয়াহিদুজ্জামান রনি

দোহার উপজেলা চেয়ারম্যান ও দোহার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন বলেন, দোহার নবাবগঞ্জ ঐতিহ্যগত ভাবেই আলাদা। তাই উন্নয়নের গতি বৃদ্ধির জন্য ও সুষম উন্নয়নের জন্য হলেও এই আসনকে ভাগ করা উচিত।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে  নবাবগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান  মহসিন আকবর বলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মহসিন আকবর নিউজ৩৯কে দোহার ও নবাবগঞ্জকে আলাদা সংসদীয় করার ব্যাপারে তিনি বলেন, দোহার ও নবাবগঞ্জের দুইটি আসন আলাদা করা এই দুই উপজেলার মানুষের সময়ের দাবি। দোহারের এমপি হলে তার নজর দোহারে বেশি থাকে, নবাবগঞ্জের এমপি হলে তার নজর নবাবগঞ্জের দিকে বেশি থাকে। ফলে উন্নয়নে সমতা আনার জন্য হলেও এই দুই আসন আলাদা হওয়া প্রয়োজন।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে ঢাকা জেলা বিএনপি’র দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট মনির হোসেন রানা বলেন, ঢাকা জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক মনির হোসেন রানা নিউজ৩৯ কে বলেন, ভৌগলিক ভাবে দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলা অনেক বড় একটা এরিয়া। তাই এই হিসাবে দোহার-নবাবগঞ্জের আলাদা হওয়াই উচিত। তাছারা একই সংসদীয় আসনে দুইটি প্রশাসনিক এরিয়া থাকার কারনে উন্নয়নের কিছুটা ব্যাঘাত হচ্ছে। এছাড়া এমপিরা আসলে উন্নয়নের কাজের জন্য সংসদে যান না। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে এমপিরাও আসলে উন্নয়নের কাজে তদারকি করে। আর আমাদের দলিয় কথা হচ্ছে আমরা চাই ২০০১ এর পরিপ্রেক্ষিতে সংসদীয় আসনগুলো ভাগ হোক। এটা একদিকে যেমন আমার দলিয় দৃষ্টিকোন, ঠিক একই ভাবে আমার নিজের ব্যক্তিগত মতামতও বটে।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু বলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসিরউদ্দিন আহমেদ ঝিলু নিউজ৩৯কে বলেন, এই দুই আসন আলাদা হওয়া এই দুই উপজেলা মানুষের সময়ের চাহিদা। যেই যুক্তি দিয়ে এই আসনগুলোকে এক করা হয়েছে সেই হিসাবে তো কয়েকদিন পর ঢাকা শহরের জন্যই ১৫০ আসন দিতে হবে। এই আসনগুলো ভাগ করার জন্য গ্রামীন উন্নয়ন ঠিক মতো হচ্ছে না। যদিও এই সরকারের আমলে গ্রামীন উন্নয়ন অভাবনীয় রকমের হচ্ছে। এই কারনে উন্নয়নের স্বার্থে, দোহার-নবাবগঞ্জের ভৌগলিক অবস্থানের কথা চিন্তা করে এই আসনকে আলাদা করার একান্ত প্রয়োজন। এছাড়া কেরানীগঞ্জের আসন দুইটি যেভাবে গোজামিল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে তাতে আসলে প্রশ্ন থেকেই যায় শুধু বাধাধরা ক্রেইটেরিয়া দিয়ে আসনগুলা কাটাছাড়া করা ঠিক হয়েছে কিনা।

অন্য খবর  কেরানীগঞ্জে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদ বিতরণ

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সুরুজ আলম সুরুজঃ চলমান উন্নয়ন ও রাজনৈতিক নেতৃত্ব বিকাশের স্বার্থে আমি মনে করি ঢাকা-১ সংসদীয় আসনের পূণর্বিন্যাস প্রয়োজন।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে দোহার উপজেলা যুবদল সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন হিটু মোল্লা বলেন, এটি নিঃস্পন্দেহে ভালো উদ্যোগ। গত নির্বাচন ২টি তে এই আসন এক করা হয়েছিল রাজনৈতিক চক্রান্তে। এতে সব দিক থেকেই দোহার ও নবাবগঞ্জবাসীর উপকার হবে, বরাদ্দ বেশি পাওয়া যাবে। আমি সব কিছু বিবেচনা করেই একমত যে ঢাকা – ০১ আসন আলাদা করে, দোহার ও নবাবগঞ্জ আসন আলাদা আলাদা সংসদীয় আসন হতে হবে।

নিউজ৩৯ কে দোহার-নবাবগঞ্জ আসন আলাদা হওয়া প্রসঙ্গে ভিপি কামাল বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি কামাল হোসেইন খান(ভিপি কামাল) নিউজ৩৯ কে বলেন, ভৌগলিক ভাবে দোহার ও নবাবগঞ্জ আলাদা। তাই এর আলাদা থাকাই উচিত। তবে নদী ভাঙ্গন কবলিত দোহারের অনেকাংশ যেহেতু নদীগর্ভে চলে গেছে। তাই এই আসনকে সম্বনয় করতে হলে অবশ্যই দোহার সংসদীয় আসনকে কিছুটা বাড়ানো দরকার। সেই হিসাবে নবাবগঞ্জের তিনটি ইউনিয়ন যেগুলো ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে ঢাকা-১ দোহারে অন্তর্ভুক্ত ছিল সেই তিনটি ইউনিয়ন জয়কৃষ্ণপুর, শিকারীপাড়া ও বারুয়াখালীকে দোহারের সাথে অন্তর্ভুক্ত করা। ঠিক একইভাবে শ্রীনগরের বাঘরা ইউনিয়নকে দোহারের সংসদীয় আসনে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। এছাড়া উন্নয়নের জন্য হলেও দোহার ও নবাবগঞ্জকে আলাদা করা উচিত।

উল্লেখ্য নবাবগঞ্জের সাবেক এমপি হারুনুর অর রশিদ এবং গ্রাজ্যুয়েট এসোসিয়েশন অব দোহারের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি মোঃ আইয়ুব আলী গত ৬ই ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনে ঢাকা – ০১ সংসদীয় আসন পূণার্বিন্যাস শিরোনামে আবেদন করেন। ডাইরী নং – ১৭২৬। এই ব্যাপারে নিউজ৩৯ ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ বিস্তারিত প্রতিবেদন করে।

Comments

comments