দোহারে মৌসুমি জেলেরা পোয়াবারো

245

ইলিশের প্রজনন মৌসুমে ঢাকা জেলার দোহারের পদ্মা নদীতে মা ইলিশ ধরা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তারা।  ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি,উন্নয়ন ও মা-ইলিশ নিধন রোধে এই রায় জারি করে প্রশাসন।

১লা অক্টোবর থেকে ২১ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ প্রজনন মৌসুমে ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ থাকায় সরকারী তালিকাভূক্ত জেলেরা নিষেধাজ্ঞা মানলেও, মানছে না মৌসুমি জেলেরা। তারা এক শ্রেণির অসৎ কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে নদী থেকে ইলিশ ধরে গ্রামে গ্রামে ফেরি করে দেদারছে বিক্রি করে চলছে।  অথচ তালিকাভুক্ত জেলে পরিবারগুলো দিন কাটছে খেয়ে না খেয়ে।  এ অবস্থা চলছে দোহার উপজেলাসহ আশপাশ এলাকার পদ্মা পাড়ের জেলেদের।

এ অঞ্চলের জেলেরা নিষিদ্ধ মৌসুমে সরকারি কোন খাদ্য সহায়তা পায়না।  নিষিদ্ধকালীন সময় খাদ্য সহায়তা  হিসেবে এলাকার জেলেদের মধ্যে চাল বিতরণ করা হলেও অনেক জেলেদের জন্য জন্য এ সহায়তার আওতায় আনা হয়নি।  এ উপজেলার নারিশা জোয়ার, বিলাশপুর, মধুরচর, পদ্মা নদীর ওপর নির্ভরশীল অসংখ্য জেলে পরিবার চরম দুর্দশার মধ্যে পড়েছে।

দোহার উপজেলা অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান খান জানান, আমরা ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকা, মা-ইলিশ মাছ সহ ৭ জেলেকে কারাদন্ড দিয়েছি এবং অভিযান অব্যাহত রেখেছি।  সরকার জেলেদের অভিযানকালীন সময় খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে।  এলাকার সকল জেলেদের সহায়তার আওতায় আনতে সরকারি উচ্চ পর্যায়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জে বালিকার আত্মহত্যা

Comments

comments