দোহারে কুরবানির প্রধান পশুর হাট নিয়ে সংশয়

256
দোহারে কুরবানির প্রধান পশুর হাট নিয়ে সংশয়

দোহার পৌরসভার নিজস্ব জায়গা না থাকায় এ বছর দোহারের কুরবানীর প্রধান পশুর হাট জয়পাড়া পশুর বসানো নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। ঢাকার দোহার উপজেলায় কুরবানির প্রধান পশুর হাট বসে উপজেলার প্রাণকেন্দ্র জয়পাড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে। প্রতিবছর দেবীনগর হাট ও বাজারের ইজারা দেয় দোহার পৌরসভা। সাপ্তাহিক পশুর হাট কুসুমহাটি তহসিল অফিসের পিছনে বসলেও জায়গা সংকুলান না হওয়ায় শুরু থেকেই কুরবানির প্রধান পশুর হাট বসে আসছে জয়পাড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে । কিন্তু খেলার মাঠে পশুর হাট বসানোর কারনে গবাদি পশুর মলমুত্র ও খুটি স্থাপন করায় মাঠে সৃষ্টি হয় ছোট বড় অনেক গর্ত। যার দরুন দুই মাস মাঠ খেলার অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

গত বছর জয়পাড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সিন্ধান্ত নেয় খেলার মাঠ নষ্ট করে পশুর হাট বসতে দেবে না তারা। এদিকে কুরাবনির পশুর হাটের সময় ঘনিয়ে আসার পর ইজারাদার নিশ্চিত হতে না পারায় সঙ্কায় রয়েছেন হাট বসানো নিয়ে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে হাট ইজারাদারের পক্ষ থেকে বিদ্যালয় মাঠ ব্যবহার করার জন্য একটি লিখিত আবেদন করেছে । বিষয়টি বিদ্যালয়ের মানেজিং কমিটির সভায় উত্থাপিত হবে। ম্যানেজিং কমিটির বৈঠকের সিন্ধান্তের পর জানা যাবে হাট বসবে কী বসবে না।

অন্য খবর  কেরানীগঞ্জে গাড়ি চালকদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

এ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন হাটের ইজারাদার মোঃ দেলোয়ার হোসেন মাঝি। হাটের ইজারাদার দাবি করেন ঐতিহ্যগতভাবেই জয়পাড়া দেবিনগরের প্রধান পশুর হাট এ মাঠেই বসে আসছে। হঠাৎ করে যদি কুরবানির পশুর হাট বসতে না দেওয়া হয় তবে ক্রেতারা অন্য হাটে চলে যাবে যে কারনে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ আমরা।

দোহার পৌরসভার মেয়র আলহাজ রহিম মিয়া জানান, হাট ও বাজার একসাথে ইজারা দেওয়া । অনেক আগে থেকেই বিদ্যালয়ের মাঠটি ব্যবহার করে আসছে। তাছাড়া যদি আমাদের নিজস্ব কোন জমি থাকত তাহলে আমরা সেখানে হাট স্থানান্তর করে আনতাম। যেহুতু অন্য কোথায় এত বড় জমি নেই তাই এই জমি ব্যবহার করা ছাড়া উপায় নেই।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান খান বলেন, মাঠটি পশুর হাট বসালে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা করতে পারে না। সেদিকটি গুরুত্ব দিয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্যের সিন্ধান্তে মাঠ ব্যবহার না করার জন্য একটি রেজুলেশন গত বছর করা হয়েছে। একটি চক্র অধিক মুনাফার জন্য স্কুলের খেলার মাঠ ব্যবহার করে আসছে নিয়মতান্ত্রিকভাবে অন্যায়।

Comments

comments