ডাকসুর ভিপি কোটা আন্দোলনের নুরুল হক নুর, জিএস ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রাব্বানী

19

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে সহসভাপতি (ভিপি) পদে বিজয়ী হয়েছেন কোটা আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর। তিনি ১১০৬২ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। তিনি পেয়েছেন ৯১২৯ ভোট। সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে বিজয়ী হয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি পেয়েছেন ১০৪৮৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন কোটা আন্দোলনের নেতা মো. রাশেদ খাঁন। তিনি পেয়েছেন ৬০৬৩ ভোট।

ডাকসুর ফল ঘোষণা করছেন ভিসি ড. মো. আখতারুজ্জামানসোমবার (১১ মার্চ) দিবাগত রাতে এ ফল ঘোষণা করেন ভিসি ড. মো. আখতারুজ্জামান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)ও হল সংসদ নির্বাচনের ভোট সোমবার সকাল ৮টায় শুরু হয়ে শেষ হয় দুপুর ২টায়।

সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদে বিজয়ী হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। তিনি পেয়েছেন ১৫৩০১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন ফারুক হোসেন। তিনি পেয়েছেন ৮৮৯৬ ভোট।

এছাড়া স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক পদে সাদ বিন কাদের চৌধুরী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে আরিফ ইবনে আলী, কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক পদে লিপি আক্তার, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক পদে শাহরিমা তানজিম অর্নি, সাহিত্য সম্পাদক পদে মাজহারুল কবির শয়ন, সংস্কৃতি সম্পাদক পদে আসিফ তালুকদার,  ক্রীড়া সম্পাদক পদে শাকিল আহমেদ তানভীর, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক পদে শামস-ঈ-নোমান ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে আখতার হোসেন বিজয়ী হয়েছেন।

অন্য খবর  শিক্ষা সফরে যেতে অনুমতি বাধ্যতামূলক

১৩টি সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন- যোশীয় সাংমা চিবল (১২৫৬৮), মো. রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য (১১২৩২), তানভীর হাসান সৈকত (১০৮০৫), তিলোত্তমা সিকদার (১০৪৬৬), নিপু ইসলাম তন্বী (১০৩৯৩), রাইসা নাসের (৯৭৬৮), সাবরিনা ইতি (৯৪৫০), মো. রাকিবুল হাসান রাকিব (৮৬৭৩), নজরুল ইসলাম (৮৫০৯), মোছা. ফরিদা পারভীন (৮৪৮৯), মুহা. মাহমুদুল হাসান (৭৯৭৮), মো. সাইফুল ইসলাম রাসেল (৭৮১২) ও মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম সবুজ (৫৫১৭)।

নির্বাচনে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা অনুসারে ডাকসুর ২৫টি পদের বিপরীতে ২২৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে সহসভাপতি (ভিপি) পদে ২১ জন, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে ১৪ এবং সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা ১৩ জন। এছাড়া স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে ১১ জন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে ৯ জন, কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক পদে ৯ জন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে ১১ জন, সাহিত্য সম্পাদক পদে ৮ জন, সংস্কৃতি সম্পাদক পদে ১২ জন, ক্রীড়া সম্পাদক পদে ১১ জন, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক পদে ১০ জন ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে ১৪ জন। এর বাইরে ১৩টি সদস্য পদের বিপরীতে ৮৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

অন্য খবর  ৭ প্রকল্পের অনুমোদন একনেকে

Comments

comments