টেকসই উন্নয়নে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই : আসাদুজ্জামান খান কামাল

69

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, টেকসহ উন্নয়নে মানসম্মত ও গুণগত শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।  তিনি বলেন, টেকসই উন্নয়ন ও বৈশ্বিক শান্তির জন্য গুণগত শিক্ষার প্রয়োজন রয়েছে। তাতে কোনো সন্দেহ নেই। এর পাশাপাশি বিশ্বজুড়ে সব মানুষের নিরপত্তা নিশ্চিত করাও জরুরি।

শনিবার বিকেলে সাভারের আশুলিয়ায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মিলনায়তনে ২১তম ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন অন স্টুডেন্টস কোয়ালিটি কন্ট্রোল সার্কেল-২০১৮ (আইসিএসকিউসিসি-২০১৮) সমাপনী ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,কনভেনশনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে শিক্ষার্থীদের মাঝে টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গুণগত মানোন্নয়ন এবং আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির সর্বশেষ উন্নয়ন সম্পর্কে অবহিত করা।

মন্ত্রী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, টেকসই উন্নয়ন শ্লোগানটি এখন বিশ্বব্যাপী আলোচিত। আমরা শান্তিপূর্ন ও সুশিক্ষা গড়ে তুলতে চাই। তা না করতে পারলে আগামী দিনে দেশের উন্নয়ন হবেনা। সে কারনে নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে আধুনিক ও মানসম্মত শিক্ষায় শিক্ষিত করে তৈরী করতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই। আগামী দিনে আমরা সুন্দর ও নিরাপদ বিশ্ব দেখতে চাই।

অন্য খবর  অচিরেই খুলছে ফেসবুক

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, কুমিল্লায় শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনু’র খুনের মামলাটি বর্তমানে উচ্চতর পর্যায়ে তদন্তাধীন রয়েছে। খুব শিগগিরই সেটি আলোর মুখ দেখবে।

‘বৈশ্বিক শান্তি ও টেকসই উন্নয়নের জন্য মানসম্মত শিক্ষা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ৩ মে থেকে -৬ মে পর্যন্ত ৪ দিন ব্যাপী ড্যাফোডিল ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আশুলিয়ার স্থায়ী ক্যাম্পাসে আন্তর্জাতিক কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ সোসাইটি ফর টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট (বিএসটিকিউএম)-এর উদ্যোগে এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগিতায় বাংলাদেশে এ আন্তর্জাতিক কনভেনশন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অষ্ট্রেলিয়া, ভারত, শ্রীলংকা, নেপাল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও মোরিশাসের ৫শ’ প্রতিনিধি ও শিক্ষার্থীসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট ১ হাজার শিক্ষার্থী ও প্রতিনিধি অংশ নেয়।

এছাড়া আন্তর্জাতিক কনভেনশনে প্রায় ৬০টি স্টুডেন্টস কোয়ালিটি কন্ট্রোল সার্কেলের কেস স্টাডি ও শিক্ষাক্ষেত্রে গুণগতমান বিষয়ক ১৩টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী কনভেনশনে অংশ গ্রহণ করে।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো: সবুর খান, উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ এম ইসলাম, ওয়ার্ল্ড কাউন্সিল ফর টোটাল কোয়ালিটি এন্ড এক্সেলেন্স ইন এডুকেশন এর মহাপরিচালক মি: ডেভিড কলিংউড হুচিন, ওয়ার্ল্ড কাউন্সিল ফর টোটাল কোয়ালিটি এন্ড এক্সেলেন্স ইন এডুকেশনের চেয়ারম্যান ড. জগদীশ গান্ধী, নির্বাহী পরিচালক ড. ভিনিতা কামরান, বাংলাদেশ সোসাইটি ফর টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্টের চেয়ারম্যান এ এম এম খায়রুল বাশার, আইসিএসকিউসিসি-২০১৮ এর আহবায়ক প্রফেসর ড. এম আর কবির ও সেন্টার ফর ম্যানেজমেন্ট ডেভেলপমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাসুদ হাসান প্রমুখ।

অন্য খবর  মোবাইল নয়, পাঠ্য বইতে মনোযোগ দিতে হবে: আসাদুজ্জামান খান কামাল

Comments

comments