জাতিসঙ্ঘে ফখরুল-জেনকা গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক

37
জাতিসঙ্ঘে ফখরুল-জেনকা গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক

নিউ ইয়র্কে জাতিসঙ্ঘের সদর দফতরে জাতিসঙ্ঘের রাজনীতি বিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মিরোস্লাভ জেনকার সাথে বৈঠক করেছেন বিএনপি মহাসিচব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় এ বৈঠক শুরু হয়। এক ঘণ্টা ১০ মিনিটের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে জাতিসঙ্ঘের উচ্চপদস্থ আরো চার কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে বিএনপি মহাসচিব সাংবাদিকদের বলেন, আমরা বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছি। একই সাথে দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি এবং বিরোধী দলের ওপর সরকারের দমন-নিপীড়নের চিত্র তুলে ধরেছি। জাতিসঙ্ঘের কর্মকর্তারা আমাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন। তারা আমাদের তথ্য-উপাত্ত ও বক্তব্য বিশ্লেষণ করে পরবর্তী কার্যকর পদক্ষেপ নেবেন বলে আমাদের জানিয়েছেন।

জানা গেছে, বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বিএনপি মহাসচিব বৈঠকে একাদশ জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু করতে বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরেন। বিএনপিসহ বিরোধী দল-মতের ওপর ‘সরকারের দমন-পীড়নের’ চিত্র তুলে ধরা হয়। বিগত তিন সিটি নির্বাচন, গুম, খুনসহ রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতনের চিত্রসহ সমসাময়িক পরিস্থিতির একটি সচিত্র প্রতিবেদনও জাতিসঙ্ঘের রাজনীতিবিষয়ক উচ্চপদস্থ ওই কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করেছেন মির্জা ফখরুল।

অন্য খবর  নরসিংদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১

এ বৈঠকে অংশ নিতে স্থানীয় সময় গত বুধবার বিকেলে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়ালকে সাথে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে পৌঁছান মির্জা ফখরুল। বিমানবন্দরে দলের নেতাকর্মীরা না থাকলেও বেশ কয়েকজন নিকটাত্মীয় তাদের স্বাগত জানান। এরপর সেখান থেকে তিনি ম্যানহাটন হোটেলে ওঠেন।

বিমানবন্দরে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের জানান, ‘এখানে তিনি দুই দিন অবস্থান করবেন। তিনি নিজস্ব কাজে এসেছেন।’

জানা গেছে, জাতিসঙ্ঘে এ বৈঠকে অংশ নিতে বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক হুমায়ুন কবিরও লন্ডন থেকে নিউ ইয়র্কে গেছেন। বৈঠকে তারা সবাই উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসঙ্ঘের মহাসচিবের আমন্ত্রণেই মূলত মির্জা ফখরুল নিউ ইয়র্কে গেছেন।

গত জুলাই মাসের শুরুতে দুই দিনের সফরে ঢাকায় এসেছিলেন জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। তখন তার আগমনের উদ্দেশ্য ছিল মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের অবস্থা সরেজমিন দেখা। ওই সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথেও যৌথ মিটিং করেন জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব। বিএনপি ওই সময় জাতিসঙ্ঘের মহাসচিবের সাথে একটি বৈঠকের প্রত্যাশা করেছিল। কিন্তু তা অনুষ্ঠিত হয়নি। এরই প্রোপটে জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব বিএনপিকে নিউ ইয়র্কে আমন্ত্রণ জানান।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নিরপে ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের সময়ও একই দাবিতে অনড় ছিল এই জোট। ওই নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে বৈঠক করে সমঝোতায় আনার চেষ্টা করেছিলেন তৎকালীন জাতিসঙ্ঘের মহাসচিবের পাঠানো বিশেষ দূত তারানকো। যদিও তারানকোর সে সমঝোতার ফর্মুলা পরে মানা হয়নি বলে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন রয়েছে।

অন্য খবর  দেশে এখন অন্ধকার শ্বাসরোধী পরিবেশ বিরাজ করছে: মির্জা ফখরুল

Comments

comments