কৃষক পরিবার থেকে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি

100
কৃষক পরিবার থেকে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি

কৃষকের পরিবারের সন্তান থেকে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি। যাত্রাপথটা খুব একটা সহজ ছিল না। ছাত্র রাজনীতির মধ্যে দিয়ে জীবন শুরু করে বিভিন্ন ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে আজ সাফল্যের শিখরে মুপ্পাভারাপু বেঙ্কাইয়া নাইডু।

শনিবার ভারতের ১৩তম উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হলেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। ৭৮৫ সাংসদের মধ্যে এ দিন ভোট দিয়েছেন ৭৭১ জন। নাইডু পেয়েছেন ৫১৬টি ভোট। যদিও তার জেতার জন্য প্রয়োজন ছিল ৩০৮টি ভোট। আগামী ১১ আগস্ট উপরাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন তিনি।

১৯৪৯ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের নেল্লোর জেলার চাভাতাপালেমে জন্মগ্রহণ করেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। দশ বছর বয়সে আরএসএস-এর ভাবধারায় উদ্বুদ্ধ হন। ১৯৭২ সালে ‘জয় অন্ধ্র আন্দোলনে’ যোগদানের মধ্যে দিয়ে তার রাজ্য রাজনীতিতে উত্থান। ১৯৭৩ সালে ছাত্রনেতা হিসেবে এবিভিপি-তে যোগ দেন। পরে অন্ধ্রপ্রদেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচিত হন। নিজেও নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান। সেই কারণে কৃষক এবং আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা মানুষজনের দুর্দশা নিয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন তিনি। সেই সময় থেকেই সুবক্তা হিসেবে রাজনৈতিকমহলে ধীরে ধীরে পরিচিতি পেতে শুরু করেন বেঙ্কাইয়া।

এরপর দেশ জুড়ে জরুরি অবস্থা বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়ে জেলযাত্রা। ১৯৭৭ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত অন্ধ্রপ্রদেশের জনতা দলের যুব মোর্চার সভাপতির দায়িত্ব সামলান। এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। রাজনৈতিক জীবনে একের পর এক মাইলফলক পেরিয়ে গিয়েছেন। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ঘোষক থেকে বিধায়ক, মুখপাত্র, সাংসদ, দলের জাতীয় সাধারণ সম্পাদক, মন্ত্রিত্ব একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদ দায়িত্বের সঙ্গে সামলেছেন বেঙ্কাইয়া।

অন্য খবর  গণতন্ত্রকে রক্ষা করুন, বিদায়ী ভাষণে ওবামা

১৯৮৮ সালে কর্নাটক থেকে রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত হন। অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভা থেকে পর পর দুইবার বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন বেঙ্কাইয়া। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৩ পর্যন্ত অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্য বিজেপির সভাপতি ছিলেন তিনি। ১৯৯৩ সাল থেকে ২০০০ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিজেপি-র সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব সামলান তিনি। ১৯৯৬-২০০০ পর্যন্ত তিনি বিজেপি-র সর্বভারতীয় মুখপাত্র ছিলেন। এছাড়া, কেন্দ্র সরকারের স্বরাষ্ট্র, কৃষি, অর্থ, গ্রামোন্নয়ন, বিদেশ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ২০০৬ সালে বিজেপির সংসদীয় বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৬ সালে চতুর্থবারের জন্য রাজ্যসভার সদস্য মনোনীত হন বেঙ্কাইয়া।

Comments

comments