কুমিল্লাকে হারিয়ে ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটস

62

লিগ পর্বে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটে টানা দ্বিতীয়বারের মত ফাইনালে উঠলো গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস। টুর্নামেন্টের প্রথম কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে ঢাকা ৯৫ রানের বড় ব্যবধানে হারায় কুমিল্লা। এই হারে টুর্নামেন্টে থেকে বিদায় ঘটেনি কুমিল্লার। টুর্নামেন্টের নিয়মনুযায়ী দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে খেলবে কুমিল্লা। সেখানে তাদের জন্য অপেক্ষা করছে রংপুর রাইডার্স। শুক্রবার দুপুরে এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনা টাইটান্সকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে উঠে মাশরাফির রংপুর। আগামী ১০ ডিসেম্বর দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ও রংপুর।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের প্রথম কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্বান্ত নেন ঢাকার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ব্যাটিং-এর শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকার। দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে পাকিস্তানের হাসান আলীর বলে আউট হন ১টি চারে ৬ বলে ৬ রান করা মেহেদি মারুফ।

এরপর ইংল্যান্ডের জো ডেনলিকে নিয়ে কুমিল্লার বোলারদের বেধড়ক পিটিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এভিন লুইস। দ্বিতীয় উইকেটে মাত্র ৪০ বলে ৬৯ রান যোগ করেন তারা। ৩২ বলে ৪৭ রান করা লুইসকে থামান পাকিস্তানের শোয়েব মালিক।

অন্য খবর  সেমিফাইনালে নাদাল

লুইসের বিাদয়েরর পর ডেনলির ২৫ বলে ৩২ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাইরন পোলার্ডের ১৮ বলে ৩১ রানে বড় লড়াকু স্কোরের পথ পেয়ে যায় ঢাকা। শেষদিকে পাকিস্তানের শহিদ আফ্রিদির ১৯ বলে ৩০ রানের কল্যাণে ২০ ওভারে ৭ উইকেট ১৯১ রান করে ঢাকা। কুমিল্লার পক্ষে পাকিস্তানের হাসান আলী ১৬ রানে ৩ উইকেট নেন।

অফ-স্পিনার মোসাদ্দেক হোসেনকে দিয়ে নিজেদের বোলিং শুরু করে ঢাকা। ১৯২ রানের টার্গেটে শুরুতে মুখ থুবড়ে পড়ে কুমিল্লার। ইনিংসের তৃতীয় বলেই লিটন কুমার দাসকে শুন্য হাতে ফিরিয়ে দেন মোসাদ্দেক। পরের ওভারে তিন নম্বরে নামা জশ বাটলারকে ৫ রানে থামিয়ে দেন ঢাকার অধিনায়ক সাকিব। ফলে ৮ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় কুমিল্লা।

এরপর পরিস্থিতি সামলে সামনে এগোচ্ছিলেন কুমিল্লার অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস। কিন্তু তাদের পথে আবারো বাধাঁ হয়ে দাড়ান মোসাদ্দেক। ছক্কায় শুরু করে ৯ রানে বিদায় নেন ইমরুল।

মোসাদ্দেক ও সাকিবের পর আক্রমনে এনে কুমিল্লার বিপদ আরও বাড়িয়ে দেন আফ্রিদি। উইকেটে সেট হয়ে যাওয়া তামিমকে প্যাভিলিয়নে ফেরত দেন তিনি। ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৮ বলে ৩১ রান করেন তামিম। তার বিদায়ের পর যাওয়া-আসায় ব্যস্ত সময় কাটায় কুমিল্লার ব্যাটসম্যানরা। তাই ৭১ রানে অষ্টম উইকেট হারিয়ে শতরানের নীচে গুটিয়ে যাবার শংকায় পড়ে কুমিল্লা। শেষ পর্যন্ত তাই ঘটে। ১৮ ওভারে দলীয় ৯৬ রানেই গুটিয়ে যায় তারা। ঢাকার আফ্রিদি ১৬ রানে ৩ উইকেট নেন।

অন্য খবর  ডায়নামাইটসে উড়ে গেল টাইটাইনসরা

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

ঢাকা ডায়নামাইটস : ১৯১/৭, ২০ ওভার (লুইস ৪৭, ডেনলি ৩২, হাসান ৩/১৬)।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স : ৯৬/১০, ১৮ ওভার (তামিম ৩১, হাসান ১৮, আফ্রিদি ৩/১৬)।

ফল : ঢাকা ডায়নামাইটস ৯৫ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : শহিদ আফ্রিদি (ঢাকা ডায়নামাইটস)।

Comments

comments