কাশ্মিরে ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত

52
কাশ্মিরে ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত

পাকিস্তান দাবি করেছে, বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) তাদের আকাশসীমায় ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান গুলি করে ভূপাতিত করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে আজাদ-কাশ্মিরে ভারতীয় বিমান হামলার একদিনের মাথায় এ ঘটনা ঘটলো। ভারতীয় বিমান ভূপাতিত করার খবর নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ দফতরের শীর্ষ কর্মকর্তা বলেছেন, আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকারবোধ থেকেই নিজেদের আকাশসীমায় ভারতীয় বিমান প্রতিহত করা হয়েছে। বিমানে থাকা ভারতের দুই পাইলটকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। এদিকে ভারতীয় পুলিশ রয়টার্স ও আলজাজিরাকে বলেছে, এদিন ‘কাশ্মিরের বিরোধপূর্ণ অঞ্চলে’ তাদের একটি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে দুই পাইলট ও এক বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। তবে পাকিস্তানি আক্রমণে ওই বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে কিনা, তা নিশ্চিত করেনি তারা। এদিকে নিউজ এইটিন জানিয়েছে, পাকিস্তানের হাতে পাইলট গ্রেফতার হওয়ার দাবি নাকচ করে দিয়েছে ভারতের সেনাসূত্র।

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মুখপাত্র আসিফ গফুর টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে বলেছেন, বুধবার সকালে সীমান্তের নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে ভারতে বিমান হামলা চালিয়েছে পাকিস্তান। এর প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় বিমানবাহিনীও নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে। এ সময় পাকিস্তানের আকাশসীমায় দুটি ভারতীয় বিমানকে গুলি করে ভূপাতিত করা হয়। দুই বিমানের একটি আজাদ কাশ্মিরে ভূপাতিত হয়। অন্যটি ভারতের দখলকৃত কাশ্মিরে গিয়ে ভূপাতিত হয়।

অন্য খবর  ক্রিকইনফোর দ্বিতীয় সেরা বাংলাদেশের সেই ম্যাচ

আসিফ গফুর জানান, ভারতীয় এক পাইলটকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে, ভারতের পক্ষ থেকেও বুধবার দেশটির আকাশসীমায় পাকিস্তানের অন্তত তিনটি যুদ্ধবিমান প্রবেশের বিষয়টি স্বীকার করা হয়েছে। তবে দিল্লির দাবি, ভারতীয় বিমান বাহিনীর ধাওয়ায় পাকিস্তানি বিমানগুলো পালিয়ে গেছে।

নতুন করে পাকিস্তানের প্রতিশোধমূলক হামলার আশঙ্কায় ২৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের প্রধান বিমানবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে কাশ্মিরের পাকিস্তান অংশে ভারতীয় বাহিনীর হামলার খবরে ভারতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। দেশটিতে একদিকে বইছে উৎসবের আমেজ, অন্যদিকে পাকিস্তানের পাল্টা হামলার ভয়ে আতঙ্কে দিন কাটছে সীমান্ত এলাকার বাসিন্দাদের। হামলা থেকে বাঁচতে বাংকার খুঁড়ছেন তারা। বাংকার তৈরির পর সেখান থেকে পানি নিষ্কাশন করছেন জম্মু-কাশ্মিরের কিছু গ্রামবাসী। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এমন ছবিই বলে দেয় কতটা আতঙ্কে রয়েছেন সীমান্তের মানুষ।

সীমান্তে আতঙ্ক থাকলেও পাকিস্তানে হামলার খবরে রীতিমতো উদযাপনে মেতেছে ভারতের অন্যান্য এলাকার বাসিন্দারা। কোথাও লোকজন রাস্তায় নেমে এসে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। কোথাও আনন্দ মিছিল আবার কোথাও মিষ্টি বিতরণ। সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। বিভিন্ন স্থানে বাজি পুড়িয়ে উল্লাস প্রকাশ করছেন দলটির নেতাকর্মীরা।

অন্য খবর  শহিদুল আলমকে মুক্তি দিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি টিউলিপ সিদ্দিকের আহ্বান

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে ‘সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের’ গাড়িবহরে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে বাহিনীটির অন্তত ৪০ জন সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের ভেতরে বোমাবর্ষণ করে।

Comments

comments