এশার বহিষ্কারাদেশ তুলে নিলো ছাত্রলীগ

23

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কবি সুফিয়া কামাল হলের ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) তার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয়। ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়ার কথা জানানো হয়।

১১ এপ্রিল রাতে নিজ হলের এক ছাত্রীকে মারধর করার অভিযোগে তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) ছাত্রলীগ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুসারে সে নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয় বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

ইফফাত জাহান এশাএ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন বলেন, ‘তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী সে নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছে। তাই আজকে তার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয়।’

এদিকে, শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) ঢাবি মধুর ক্যান্টিনে পহেলা বৈশাখে ছাত্রলীগের কর্মসূচি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে প্রশ্ন করা হয়, কোনও ধরনের তদন্ত না করেই এশাকে কেন সেদিন রাতে বহিষ্কার করা হয়েছিল। এর জবাবে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, ‘সেদিন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বহিষ্কার করেছিলাম। কিন্তু সবার আগে সে বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাধারণ শিক্ষার্থী। সেই হিসেবেই আমরা তার পাশে দাঁড়িয়েছি। সেদিন তার ওপর যে নির্যাতন করা হয়েছে, আমরা সেটার বিচার দাবি করছি।’

অন্য খবর  সাভারে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু

কোটা সংস্কার আন্দোলনে একাত্ম হওয়ায় মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) দিবাগত রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের কয়েকজন ছাত্রীকে মারধর করা হয়। ছাত্রলীগের হল শাখার সভাপতি ইফফাত জাহান এশার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের মারধর করে বলে অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনার জেরে ইফফাত জাহান এশাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কারও করা হয়। একই সঙ্গে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার ও তদন্ত কমিটি গঠন করে ঢাবি।

Comments

comments