বিপিএলেও খেলা হচ্ছে না মুস্তাফিজের

47

প্রথম ওয়ানডের আগেই অনুশীলনে ফুটবল খেলতে গিয়ে চোট পেয়েছিলেন অ্যাঙ্কেলে। শুরুতে ফিট হয়ে যাবেন বলে মনে হলেও পরে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরে আসতে হয়েছে মুস্তাফিজুর রহমানকে। এবার বাংলাদেশ দলের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানালেন, সেরে উঠতে অন্তত আরও দুই তিন থেকে তিন সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগবে। যার মানে বিপিএলে রাজশাহী কিংসের প্রথম চার ম্যাচে খেলতে পারছেন না নিশ্চিতভাবেই। আদৌ খেলতে পারবেন কি না, তা নিয়েই আছে সংশয়।

প্রথম ওয়ানডের পর মনে হয়েছিল, টি-টোয়েন্টি সিরিজে অন্তত খেলতে পারবেন মুস্তাফিজ। পরে স্ক্যান করে দেখা যায়, এটা গ্রেড টু স্প্রেইন। যেটির জন্য অন্তত এক খেলার বাইরে থাকতে হবে। তবে দেবাশীষ চৌধুরী সতর্ক করে দিলেন, মুস্তাফিজের চোট থেকে ফেরার জন্য কোনো তাড়াহুড়ো করা ঠিক হবে না, ‘লেটারেল অ্যাঙ্কেল স্ট্রেইন খুব খারাপ ধরনের ইনজুরি। ঠিকমতো পুনর্বাসন না হয়ে ও যদি খেলায় ফেরে তাহলে ভবিষ্যতে এ ইনজুরি আবার ফিরে আসতে পারে। তো আমরা চাইবো ও পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ফিরে আসুক। এজন্য যদি বিপিএলের কিছু ম্যাচ যদি মিস করতে হয় তাহলে আমরা মেনে নেব।’ তবে ড. দেবাশীষ আশ্বস্ত করলেন, প্রথম দিনের পর তাঁর উন্নতি বেশ ভালো।

অন্য খবর  নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের বোলিং চাঙ্গা করবেন মোস্তাফিজ

সেটা হলে আগামী ৪ নভেম্বর থেকে রাজশাহী কিংসের হয়ে বিপিএলেও নামা হচ্ছে না মাঠে। দেবাশীষ চৌধুরী জানালেন, এক মাসের মধ্যে অনেকটা ফিট হয়ে উঠবেন মুস্তাফিজ। কিন্তু ম্যাচ খেলার মতো অবস্থায় আসতে আরও একটু বেশি সময় লেগে যেতে পারে, ‘ওর ইনজুরির দিন থেকে প্রায় দুই সপ্তাহ হয়ে গেছে। আরও যদি দুই সপ্তাহ বিশ্রাম নিতে পারে তাহলে একমাস হবে। এক মাস রিকভারির জন্য খুব ভাল একটা সময়। কিন্তু সমস্যা থেকে যাবে রিকভারির পরেও ওর অনেক দিন ধরে অনুশীলনের বাইরে আছে। বোলিং অনুশীলনের জন্য ওকে কিছুদিন সময় দিতে হবে। সে সময়টা নিভর করবে ওর উপর। ইনজুরির দিক থেকে ১ মাস ভাল সময়। ও যেহেতু পেস বোলার এক মাসের পরও যদি মনে রিহ্যাব করানোর। শেষের দিকে পুনবাসন ও বোলিং প্র্যাকটিস হয়ত একসঙ্গে চলবে। সবমিলিয়ে ২-৩ সপ্তাহের মতো সময় লেগে যাবে। এর আগে পুরোপুরি ফিট মোস্তাফিজকে হয়তে আমরা পাব না।’ ১৫ নভেম্বরও যদি ফেরেন, সেক্ষেত্রে মুস্তাফিজ প্রথম চার ম্যাচ খেলতে পারবেন না। কিন্তু পরিস্থিতি বলছে, সেটি আরও পিছিয়ে যেতে পারে।

অন্য খবর  ঢাকা মাতাতে আসছেন হাফিজ

ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে ২০১৫ সালে খেলার পর গত মৌসুমেও খেলতে পারেননি বিপিএলে। তবে ড. দেবাশীষ বলছেন, মুস্তাফিজ ইতিবাচকই আছেন। সেটা তাঁর দ্রুত সেরে উঠতে সাহায্য করবে বলেই মনে করেন তিনি।

Comments

comments