ইমরান এইচ সরকার আটকের পর মুক্তি

43

 

রাজধানীর শাহবাগ থেকে গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে তুলে নেয়ার কয়েক ঘণ্টা পর ছেড়ে দিয়েছে র‍্যাব।

র‍্যাবের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ইমরান এইচ সরকারকে ছেড়ে দিয়েছে র‍্যাব।’

ইমরানকে কী বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে এ বিষয়ে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. এমরানুল হাসান বলেন, ‘তাকে (ইমরান এইচ সরকার) আটক করা হয়েছিল। কিছু বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার দরকার ছিল। জিজ্ঞাসাবাদ শেষেই রাত ১১টার দিকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। অনেক কিছুই বিবেচনায় ছিল। সেটা বলার সুযোগ নেই।’

এর আগে বুধবার বিকেলে মাদকবিরোধী অভিযানে ‘বিনা বিচারে হত্যা’র প্রতিবাদে শাহবাগে পূর্বঘোষিত সমাবেশ থেকে আটক করা হয় ইমরানকে।

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে আটক করেছে র‌্যাব। বুধবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে রাজধানীর শাহবাগে ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডবিরোধী’ মানববন্ধন করার সময় তাকে আটক করা হয়। র‌্যাব-৩ অধিনায়ক এমরানুল হক আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এমরানুল হক বলেন, ‘শাহবাগে অবৈধভাবে সমাবেশ করার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। আইনি-প্রক্রিয়া অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অন্য খবর  নারায়ণগঞ্জে বাবার হাতে ছেলে খুন

র‌্যাব সদস্যদের ধাওয়ার মুখে রাস্তার ওপরে পড়ে যান গণজাগরণ মঞ্চের এক কর্মীএদিকে গণজাগরণ মঞ্চের একজন নেতা জানান, বুধবার বিকেলে শাহবাগে ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডবিরোধী’ মানববন্ধন করার সময় গণজাগরণ মঞ্চের নেতাকর্মীদের বাধা দেয় পুলিশ ও র‌্যাব-৩। এরপর পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা একসঙ্গে তাদের ধাওয়া দিয়ে লাঠিচার্জ করে। এ সময় মানববন্ধনে অংশ নেওয়া নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান।’ তিনি আরও বলেন, ‘পরবর্তী সময়ে র‌্যাব-৩ সদস্যরা ইমরান এইচ সরকারকে আটক করে একটি মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে যান। মাইক্রোবাসের সামনে পেছনে র‌্যাবের দুটি পিকআপ ছিল।’

জানতে চাইলে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বলেন, ‘আমরা কাউকে আটক করিনি। ছাত্র ইউনিয়নের একটি মানববন্ধন চলছিল। সেখানে ইমরান এইচ সরকারও ছিলেন।’ তাকে আটক করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি।

Comments

comments