আড়িয়াল বিলে বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণে কাজ করছেন সালমান এফ রহমান

89

তারেক রাজীব, নিউজ৩৯ঃ মুন্সীগঞ্জ – দোহার সীমান্তের আড়িয়াল বিলে বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণের বিষয়টি চূড়ান্ত করতে কাজ করছেন ঢাকা -১ আসনের সাংসদ ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

এই ব্যাপারে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক বলেন, ‘বিমানবন্দর নির্মাণের জন্য আমরা কিছু জায়গা বাছাই করে রেডি (প্রস্তুত) রেখেছি। পদ্মার ওপারে শিবচরের চরজানাজাতও ছিল। তবে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এত লোক উচ্ছেদ করে আমি বিমানবন্দর করব না।’

তিনি বলেন, ‘প্রথমে যে স্থান অর্থাৎ আড়িয়াল বিল ঠিক করেছিলাম, সেখানেই এখন চেষ্টা চলছে। আর সেখানকার লোকজনও স্বেচ্ছায় জমি দিতে চাচ্ছেন। এখন আমরা কোথাও কিছু করলে স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে, তাদের মতামতের ভিত্তিতেই করব।’

‘আমরা আড়িয়ল বিল নিয়ে চিন্তা করছি। কিন্তু এখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন প্রয়োজন। আশা করছি উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন আদায় করতে সমর্থ হবেন।’

সিনিয়র সচিব আরও বলেন, ‘(আড়িয়ল বিল এলাকার) স্থানীয়রা এখন মিছিল-মিটিং করছেন। তারা বলছেন, আমাদের এখানে করেন। স্মারকলিপিও দিয়ে গেছেন।’

বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘আড়িয়ল বিলে বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণের বিষয়টি চূড়ান্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান কাজ করছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বোঝাচ্ছেন। আগে বিমানবন্দর করতে না দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী কষ্ট পেয়েছেন, তাই তিনি এখন রাজি হচ্ছেন না। প্রধানমন্ত্রী এখন বলছেন, তারা একবার না করে দিয়েছে, করতে দেয়নি। এখন চাইছে, দেব না। শিল্প উপদেষ্টা প্রধানমন্ত্রীকে নরম করার চেষ্টা করছেন। যেহেতু এলাকাবাসী এখন জমি দিতে সম্মত এবং তারা তাদের ভুল বুঝতে পেরেছে, তাই ঢাকা -১ সাংসদ, সালমান এফ রহমান আশা করা যায় প্রধানমন্ত্রীকে বোঝাতে এবং বিমানবন্দর আদায় করতে সম্মত হবেন।’

অন্য খবর  দোহারে দুই মাদকসেবীর কারাদন্ড

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণের বিষয়টি আলোচিত হচ্ছে। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষমতায় আসার পরই একটি সর্বাধুনিক বিমানবন্দর নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়, যে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটি হবে আঞ্চলিক সংযোগের গুরুত্বপূর্ণ স্থান। এর নাম ঠিক করা হয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে। কিন্তু নানা জটিলতায় বিমানবন্দর নির্মাণে এখনও উপযুক্ত একটি স্থানই নির্বাচন করা যায়নি।

আড়িয়াল বিলে বিমানবন্দর পিপিপি প্রকল্পের অধীনে বাস্তবায়ন হবে। এতে ২৫ হাজার একর জমি ও ৫০ হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন হবে।

Comments

comments