আবার উ. কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা; আঘাত হানতে সক্ষম মার্কিন ভূখণ্ডে

33
আবার উ. কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা; আঘাত হানতে সক্ষম মার্কিন ভূখণ্ডে

উত্তর কোরিয়া আবার আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও আমেরিকা বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। যদি বিষয়টি সঠিক হয় তাহলে উত্তর কোরিয়া চলতি বছর এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালালো।

দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস অব স্টাফস এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, দক্ষিণ পিয়নগান প্রদেশের পিয়ংসং শহরের কাছ থেকে অজ্ঞাতনাম ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে উত্তর কোরিয়া এবং তা আমেরিকার মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম। তবে উত্তর কোরিয়া এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলে নি।

গত ১৫ সেপ্টেম্বরের পর এই প্রথম দেশটি এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালালো। জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইতসুনোরি অনোদেরা জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রায় চার হাজার কিলোমিটার উচ্চতায় ওঠে এবং জাপানের বিশেষায়িত অর্থনৈতিক জোনে পড়ার আগে তা ভেঙে যায়। তিনি জানান, উত্তর কোরিয়া এ পর্যন্ত যত ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে তার মধ্যে এটি দূরত্ব অতিক্রম করার ক্ষেত্রে আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিসও সাংবাদিকদের একই কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, উত্তর কোরিয়া তাদের আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে বিশ্বের যেকোনে জায়গায় আঘাত হানতে পারে।

অন্য খবর  উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ জাপান সাগরে

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার আগে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানানো হয় যে, উত্তর কোরিয়া নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে। সেইদিনই পিয়ংইয়ং এ পরীক্ষা চালালো। দক্ষিণ কোরিয়ার বার্তা সংস্থা ইয়োনহ্যাপ জানিয়েছে, কক্ষপথের যে উচ্চতায় আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন অবস্থিত তার চেয়ে অন্তত দশগুণ উচ্চতায় উঠেছিল আজকের ক্ষেপণাস্ত্র। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন পৃথিবীর কক্ষপথ থেকে ২৫০ মাইল উপরে অবস্থিত।

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন জরুরিভিত্তিতে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আহ্বান করেন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ডাকার আহ্বান জানিয়েছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, “এটা এমন একটা পরিস্থিতি যা আমরা মোকাবেলা করব।” তিনি আরো বলেছেন, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কারণে উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে আমেরিকার অবস্থানে কোনো পরিবর্তন হবে না। ন্যাটো এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার নিন্দা জানিয়েছে।

Comments

comments