আইএস নেতা বাগদাদি ‘বেঁচে আছেন’: ইরাকি কর্মকর্তা

99
দায়েশ নেতা বাগদাদি ‘বেঁচে আছেন’: ইরাকি কর্মকর্তা

উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশের নেতা আবু বকর আল-বাগদাদি ‘জীবিত’ আছেন এবং সিরিয়ার একটি ভ্রাম্যমান হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে একজন শীর্ষস্থানীয় ইরাকি গোয়েন্দা কর্মকর্তা দাবি করেছেন। এই কুখ্যাত জঙ্গি নেতা নিহত হয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্র খবর প্রচার করার প্রায় এক বছর পর নতুন এ খবর প্রচারিত হলো।

ইরাকের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গোয়েন্দা ও কাউন্টার-টেররিজম অপারেশন্স সার্ভিসের প্রধান আবু আলী আল-বসরি’র বরাত দিয়ে বাগদাদ থেকে প্রকাশিত দৈনিক আস-সাবাহ এ খবর জানিয়েছে।

বসরি গতকাল (সোমবার) বলেছেন, “জঙ্গি গোষ্ঠীর কাছ থেকে পাওয়া এমন অকাট্য তথ্য ও দলিল আমোদের কাছে রয়েছে যা দিয়ে প্রমাণিত হয় আল-বাগদাদি এখনো জীবিত অবস্থায় পালিয়ে আছেন।” সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় হাসাকা প্রদেশের জাযিরা অঞ্চলে বাগদাদি অবস্থান করছেন বলে তিনি জানান। তবে ইরাক ও সিরিয়া থেকে দায়েশ উৎখাত হয়ে যাওয়ার পরও বাগদাদি কীভাবে এবং কাদের আশ্রয়ে সিরিয়ায় অবস্থান করছেন সে সম্পর্কে তিনি কিছু জানাননি।

ইরাকের এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা আরো বলেন, মারাত্মক আহত বাগদাদি কারো সাহায্য ছাড়া হাঁটতে পারেন না। ইরাকে দায়েশ বিরোধী বিমান হামলার সময় তিনি আহত হয়েছেন বলে বসরি জানান।

অন্য খবর  চীনের সঙ্গে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করবে পাকিস্তান

এর আগে গত বছরের জুন মাসে রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওলেগ সিরোমোলোটভ বলেছিলেন, মে মাসে সিরিয়ার রাকা শহরের উপকণ্ঠে জঙ্গিদের একটি কমান্ড পোস্টে রুশ বিমান বাহিনীর হামলায় বাগদাদি নিহত হয়েছেন।

এরপর জুলাই মাসে ইরাকের নেইনাভা প্রদেশের স্থানীয় একটি অজ্ঞাত সূত্র আস-সুমেরিয়া টেলিভিশন চ্যানেলকে জানায়, জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে তাদের নেতার নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে।

আস-সুমেরিয়া’র ওই খবর প্রচারের কয়েকদিন পর মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস বলেন, বাগদাদি নিহত হয়েছেন বলে তাদের কাছে কোনো প্রমাণ নেই। ম্যাটিসের ওই বক্তব্যের দু’দিন পর গত বছরের ১৬ জুলাই ইরাকের গোয়েন্দা কর্মকর্তা বসরি বলেন, বাগদাদি জীবিত আছেন এবং সিরিয়ায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। বসরির এ বক্তব্য সৌদি নিউজ চ্যানেল আল-আরাবিয়া প্রচার করে।

উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশকে গত বছরের শেষদিকে ইরাক ও সিরিয়া থেকে পুরোপুরি উৎখাত করা হয়েছে।

Comments

comments